ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: ঊর্ধ্বমুখী ধারায় ফিরেছে দেশের শেয়ারবাজার। শেষ সপ্তাহেও প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। সেই সঙ্গে লেনদেনও বেড়েছে দ্বিগুণ। এর প্রভাবে সার্বিক মূল্য-আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ২ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বেড়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মূল্য-আয় অনুপাত হচ্ছে একটি কোম্পানির শেয়ার তার আয়ের কতগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে তার একটি পরিমাপ। তাই পিই রেশিও যত কম হয়, বিনিয়োগে ঝুঁকি তত কম। তবে পিই রেশিও ১৫ ঘরে বা তার নিচে থাকলে বিনিয়োগ নিরাপদ বলে মনে করেন শেয়ারবাজার বিশ্লেষকরা।

সূত্র মতে, বর্তমানে ডিএসইর পিই রেশিও অবস্থান করছে ১৬ দশমিক ২৮ পয়েন্টে। আগের সপ্তাহে যার অবস্থান ছিল ১৫ দশমিক ৮৪ পয়েন্ট। সে হিসেবে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইর পিই রেশিও বেড়েছে দশমিক ৪৪ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

সপ্তাহ শেষে খাতভিত্তিক ট্রেইলিং পিই রেশিও বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংক খাতের পিই রেশিও অবস্থান করছে ৮ দশমিক ৯ পয়েন্টে, সিমেন্ট খাতের ৪১ দশমিক ৪ পয়েন্টে, সিরামিক খাতের ২০ দশমিক ৯ পয়েন্টে, প্রকৌশল খাতের ২১ দশমিক ২ পয়েন্টে, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের ৩০ দশমিক ১ পয়েন্টে, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ১২ পয়েন্টে, সাধারণ বীমা খাতে ১১ দশমিক ৬ পয়েন্টে, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ২৩ দশমিক ৩ পয়েন্টে।

এছাড়া পাট খাতের পিই রেশিও মাইনাস ৩৪ দশমিক ৯ পয়েন্টে, বিবিধ খাতের ২৬ দশমিক ২ পয়েন্টে, এনবিএফআই খাতে ১৬ পয়েন্ট, কাগজ খাতের মাইনাস ১৩ দশমিক ৪ পয়েন্টে, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ২০ দশমিক ৭ পয়েন্টে, সেবা ও আবাসন খাতের ২৬ দশমিক ৪ পয়েন্টে, চামড়া খাতের ১৫ দশমিক ৫ পয়েন্টে, টেলিযোগাযোগ খাতে ২৩ দশমিক ৯ পয়েন্টে, বস্ত্র খাতের ১৯ দশমিক ৯ পয়েন্টে এবং ভ্রমণ ও অবকাশ খাতে মাইনাস ২৫ পয়েন্টে অবস্থান করছে।