আইন-আদালত ডেস্ক:: রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় গ্রেফতার জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসচালক ও দুই হেলপারকে সাতদিন করে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

পুলিশের করা রিমান্ড আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম এ আদেশ দেন।

আসামিরা হলেন- বাসচালক সোহাগ আলী (৩৫) ও জুবায়ের (৩৫) এবং হেলপার এনায়েত হোসেন (৩৮) ও রিপন হোসেন (৩২)।

এর আগে গত ৩১ জুলাই এদের আদালতে পাঠিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানায় পুলিশ। কিন্তু আবেদনের সঙ্গে মামলার কেস ডকেট (সিডি) না থাকায় বিচারক ৬ আগস্ট রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেন।

গত ২৯ জুলাই দুপুরে রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসের রেষারেষিতে একটি বাসের চাপায় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী- আবদুল করিম ওরফে রাজীব (১৭) ও দিয়া খানম ওরফে মীম (১৬) নিহত হয়।

এ ঘটনার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় নেমে আসে শিক্ষার্থীরা। তারা সড়ক অবরোধের পাশাপাশি বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নিয়ে গাড়ির কাগজ ও চালকের লাইসেন্স পরীক্ষা করতে শুরু করে। এক পর্যায়ে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে, যে আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানায় সাধারণ মানুষও।

দুর্ঘটনার পরদিনই র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে শিক্ষার্থীদের চাপা দেওয়া জাবালে নূর পরিবহনের বাসটির চালক মাসুম বিল্লাহ এবং একই কোম্পানির আরও দুই বাসের চালক ও দুই হেলপারকে গ্রেফতারের কথা জানায়। এছাড়া গত বুধবার শিক্ষার্থীদের চাপা দেওয়া জাবালে নূরের বাসের মালিক শাহাদাত হোসেনকে গ্রেফতারের কথা জানায় র‌্যাব।

এদের মধ্যে শিক্ষার্থীদের চাপা দেওয়া বাসের মালিক শাহাদাত হোসেন ও চালক মাসুম বিল্লাহ সাতদিন করে রিমান্ডে আছেন।