ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: সরকার বাধা সৃষ্টি না করলে বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন বলে জানিয়েছেন তার অন্যতম আইনজীবী ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় হাইকোর্ট বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ৪ মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেয়ার পর এক প্রতিক্রিয়া তিনি এ কথা বলেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, হাইকোর্ট বেগম খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়েছেন। সরকার আর কোনো বাধা সৃষ্টি না করলে তিনি মুক্তি পাবেন। তার কারামুক্তিতে কোনো বাধা নেই। তিনি আরো বলেন, আমরা বলেছিলাম, উচ্চ আদালতের প্রতি এখনো জনগণের আস্থা রয়েছে। আদালত সেই আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন।

তিনি জানান, এ আদেশের কপি সাজা হওয়া নিম্ন আদালতে যাবে। সেখানে জামিন আদেশ হবে। সে আদেশ কারাগারে পৌঁছার পর খালেদা জিয়া কারাগার থেকে বেরিয়ে আসবেন।

এদিকে, খালেদা জিয়ার জামিন আদেশের পর বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা উল্লাস করেছেন। সুপ্রিম কোর্ট ও আইনজীবী সমিতির কার্যালয়ের সামনে তারা সমবেত হয়ে এ উল্লেখ প্রকাশ করেন। এ সময় কাউকে কাউকে মিষ্টি বিতরণ করতে দেখা গেছে। এ রায় উপলক্ষে প্রচুরসংখ্যক আইনজীবী ও রাজনৈতিক নেতাকর্মী হাইকোর্ট প্রাঙ্গণে সমবেত হয়েছিলেন।

বিএনপি নেতাদের মধ্যে আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মঈন খান প্রমুখ।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম খালেদা জিয়াকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পরপরই বেগম খালেদা জিয়াকে আদালত থেকে গ্রেফতার করে পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি এখন কারাগারে আছেন।

এ মামলায় বেগম খালেদা জিয়া ছাড়াও তার বড় ছেলে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ আরো ৫ জনকে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ ছাড়া মামলায় অন্য চার আসামি হলেন, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিসুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান। রায়ে আসামিদের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়।