আইন-আদালত ডেস্ক:: অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় সাবেক সংসদ সদস্য ও হুইপ সৈয়দ শহিদুল হক জামালকে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গত ২৮ জুন সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি এসএম কুদ্দুস জামানের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদেশে ১০ দিনের মধ্যে তাকে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে। সে অনুসারে আগামী ৮ জুলাইয়ের মধ্যে শহিদুল হক জামালকে আত্মসমর্পণ করতে হবে।

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম প্রণব কুমার হুই উচ্চ আদালতের ওই আদেশ নথিতে অন্তর্ভুক্ত করেন। একই সঙ্গে ৬ আগস্ট মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

আদালত সূত্র জানায়, সাবেক হুইপ সৈয়দ শহিদুল হকের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে তাকে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ দেয় দুদক। সে অনুসারে তিনি দুদক সচিব বরাবর সম্পদ বিবরণী দাখিল করেন।

তার দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণী পর্যালোচনায় দেখা যায়, তিনি নিজ নামে ও তার স্ত্রীর নাম অর্জিত মোট এক কোটি ১৩ লাখ তিন হাজার ৩৯০ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন এবং তার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত এক কোটি ১৩ লাখ তিন হাজার ৩৯০ টাকার সম্পদের মালিকানা স্বত্ব অর্জন করেছেন। সেই সাথে তার স্ত্রী নাসরিন হক জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৬৬ লাখ চার হাজার ৩৯০ টাকার সম্পদের মালিকানা অর্জন করেছেন। এ অভিযোগে ২০০৮ সালের ৪ আগস্ট রাজধানীর রমনা থানায় দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. মাহমুদুল হাসান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় শহিদুল হক জামাল ও তার স্ত্রীকে আসামি করা হয়।