ক্রীড়া প্রতিবেদক::

ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বৃহস্পতিবার মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। ডাবলিনের মালাহাইডের দ্য ভিলেজ মাঠে এই ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক আয়াল্যান্ড। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিটে ম্যাচটি শুরু হবে।

প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে দারুণ ছন্দে আছে বাংলাদেশ। অন্য দিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছে আয়ার‌ল্যান্ড। তাই এই ম্যাচে মানসিকভাবে এগিয়ে থেকেই মাঠে নামবে মাশরাফি বাহিনী।

দুই বছর আগে সর্বশেষ এই মাঠেই আয়ার‌ল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে একই ধরনের একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজন করা হয়েছিল আয়ারল্যান্ড, বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডকে নিয়ে। লিগ পর্বের প্রথম ম্যাচ পরিত্যাক্ত হয়। দ্বিতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে সহজেই হারিয়েছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে জ্বলে উঠেছিলেন পেসার মোস্তাফিজুর রহমান ও ওপেনার সৌম্য সরকার।

মোস্তাফিজ বল হাতে জ্বলে উঠে শুরুতেই আইরিশদের ব্যাটিং মেরুদন্ড ভেঙ্গে গড়ে দিয়েছিলেন জয়ের ভিত। তার সুইং ও কাটারের সামনে (৯-২-২৩-৪) আয়ারল্যান্ডের একজন ব্যাটসম্যানও মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেননি। ফলে ১৮১ রানের মামুলি সংগ্রহে শেষ হয় আয়ারল্যান্ডের ইনিংস।

এরপর ৮ উইকেট হাতে রেখে ১৩৭ বল আগেই জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ। সৌম্য সরকার অপরাজিত থাকেন ৬৮ বলে ৮৭ রান করে। তামিম ইকবাল (৫৪ বলে ৪৭) অল্পের জন্য হাফ সেঞ্চুরি মিস করলেও দলকে ৯১ রানের জুটিতে এক শক্ত ভিত গড়তে রাখেন কার্যকর ভূমিকা।

সব মিলে গত ৯ বছরে পাঁচ বার পরস্পরের মুখোমুখী হয়েছে বাংলাদেশ-আয়ার‌ল্যান্ড। এর মধ্যে একটি ম্যাচ পরিত্যাক্ত হয়েছে। বাকি চার ম্যাচের তিনটিতে জিতেছে বাংলাদেশ, একটিতে আয়ারল্যান্ড।

২০১০ সালে বেলফাস্টে বাংলাদেশকে ৭ উইকেটে হারিয়েছিল আইরিশরা।