আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

ক্ষমতা অপব্যবহারের অভিযোগে জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় তৈরি দুর্নীতিবিরোধী কমিশনকে বরখাস্ত করেছে গুয়েতেমালা।

দেশটির প্রেসিডেন্ট জিমি মোরালেসের দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত শুরুর পর মঙ্গলবার কমিশন থেকে নিজেকে প্রত্যাহারের কথা জানিয়েছে।

তবে জাতিসংঘের মহাসসচিব অ্যান্তনিও গুয়েতেরেস এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, গুয়াতেমালার সরকারকে অবশ্যই আন্তর্জাতিক চুক্তি মেনে চলতে হবে।

এক দশক আগে গুয়েতেমালার সরকারি কৌঁসুলিদের সঙ্গে কাজ করতে ও স্বাধীন তদন্তের জন্য ইন্টারন্যাশনাল কমিশন এগেইনস্ট ইমপিউনিটি ইন গুয়াতেমালা (সিআইসিআইজি) গঠন করা হয়েছিল।

গুয়াতেমালার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সান্দ্রা জোভেল বলেছেন, দুর্নীতিবিরোধী জাতিসংঘের ওই কমিশনের সদস্যদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেশ ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সান্দ্রা বলেছেন, প্রেসিডেন্ট দুর্নীতির বিরুদ্ধে তার অভিযান অব্যাহত রাখবেন। কিন্তু তার বিষয়ে তদন্ত নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি হওয়ায় সিআইসিআইজি থেকে তারা সরে আসছেন।

তিন বছর আগের নির্বাচনে জিতে কমেডি অভিনেতা থেকে প্রেসিডেন্ট হওয়া মোরালেস প্রথম দিকে এই কমিশনকে স্বাগতই জানিয়েছিলেন।

সম্প্রতি সিআইসিআইজি মোরালেসের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সঙ্গে যুক্ত এমন তহবিলের অনিয়মের অভিযোগ নিয়ে তদন্ত করতে চেয়েছিল।

প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে তদন্তে তাকে দেয়া রাষ্ট্রীয় সুরক্ষা সরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে আলাদা তদন্তও শুরু করেছিল এ কমিশন।

এর পর পরই মোরালেস সিআইসিআইজির গুয়েতেমালায় কাজের অনুমতিপত্র পর্যালোচনার ঘোষণা দিয়েছিলেন।