আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

পাক-ভারত দ্বিপক্ষীয় আলোচনা বারবার ভারতের জন্যই ভেস্তে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার দাবি, সামনে লোকসভা নির্বাচন। তাই আলোচনায় বসতে চায় না মোদি সরকার। ভোট হাতছাড়া হওয়ার ভয় রয়েছে তাদের। পাকিস্তানবিরোধী মনোভাব বজায় রাখলে তবেই না ভোট মিলবে!

তুরস্কের একটি গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। গত সোমবার রাতে এটি সম্প্রচারিত হয়।

অন্যদিকে ইন্ডিয়ান ইকোনমিক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসলামাবাদ সন্ত্রাসে মদদ জোগাচ্ছে বলে বারবার অভিযোগ তুলছে ভারত। তার জেরে আটকে গেছে ভারত-পাকিস্তান দ্বিপক্ষীয় বৈঠক। নাশকতায় ইন্ধন জোগানো বন্ধ না করলে শান্তিপূর্ণ বৈঠক সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে ভারত।

কিন্তু দুই দেশের মধ্যে আলোচনা না হওয়ার দায় একা ভারতের ঘাড়েই চাপিয়ে দিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বৈঠক না হওয়ার জন্য সরাসরি ভারতকে দায়ী করেন ইমরান।

ইমরান খান বলেন, একাধিকবার আলোচনায় বসার প্রস্তাব দিয়েছি আমি। কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি ভারত। বরং সন্ত্রাস এবং আলোচনা একসঙ্গে চলতে পারে না বলে বারবার অজুহাত দেখিয়েছে। তিনি বলেন, শান্তির দিকে এক কদম এগোতে বলেছিলাম ওদের। পরিবর্তে দুই কদম এগোতে রাজি ছিলাম। কিন্তু বারবার সেই প্রস্তাব খারিজ করেছে তারা। এপ্রিলে আবার নির্বাচন ভারতে। এ মুহূর্তে বৈঠকের প্রশ্নই ওঠে না।