আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

ইরাকের কারবালায় পবিত্র আশুরা অনুষ্ঠানে হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে ৩১ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আল জাজিরা ও আনাদলু আরবির খবরে বলা হয়, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ কারবালায় আশুরার তাজিয়া মিছিলে অস্থায়ী একটি দেয়াল ভেঙে পড়ে। এ সময় হুড়োহুড়ি সৃষ্টি হলে দম আটকে এসব মানুষের মৃত্যু হয়।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ১৭ জন নিহত ও ৭৫ জন আহত হওয়ার কথা বলা হলেও বেসামরিক সূত্রে ৩১ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

খবরে বলা হয়, মানুষের প্রচণ্ড ভীড় ও ধাক্কাধাক্কির কারণে হতাহতের সংখ্যা বেড়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইফ আল-বদর।

ইরাকের রাজধানী বাগদাদ থেকে ১১৮ কিলোমিটার দূরের কারবালা শহরে আশুরার সময় প্রতিবছর লাখ লাখ শিয়া মতালম্বী তাজিয়া মিছিলে যোগ দেয়। ৬১ হিজরীর ১০ই মুহাররম নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দৌহিত্র, হজরত ইমাম হোসাইন (রা:) আশুরার দিনে অন্যায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে ইয়াজিদ সৈন্য বাহিনীর হাতে কারবালার প্রান্তরে শাহাদাত বরণ করেন।

শিয়া সম্প্রদায়ের মুসলমানরা কারবালার সেই ঐতিহাসিক হৃদয়বিদারক ঘটনার স্মরণে প্রতীকী দুলদুল ঘোড়া সাজিয়ে, বুক চাপড়িয়ে, ধারালো ফলার আঘাতে শরীর রক্তাক্ত করে তাজিয়া মিছিল বের করেন।

কারবালার এক নিরাপত্তাকর্মী জানান, মানুষের অতিরিক্ত চাপ ও হুড়োহুড়ির কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। আশুরার তাজিয়া মিছিলে বিগত কয়েক বছরের মধ্যে এটাই সবচেয়ে প্রাণঘাতী পদদলনের হওয়ার ঘটনা।