মাদারীপুর প্রতিনিধি::

আগামী পহেলা এপ্রিল অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের কোন ধরণের অনৈতিক সহযোগিতা সহ্য করা হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দিপু মনি।

মঙ্গলবার দুপুরে মাদারীপুরে বীরমোহন উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি জানান, প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে শুধু শিক্ষা মন্ত্রণালয় একা কাজ করেনি। এজন্যে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিবাববকরা সমল্বিতভাবে চেষ্টা করেছেন। এরমধ্যে সবচে বেশি ভূমিকা রেখেছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনী ও গণমাধ্যম কর্মীরা। আগামীতে এইচএসসি পরীক্ষা হবে, সেখানেও প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে। এজন্যে অভিভাবকদের শিক্ষার্থীদের অনৈতিক সুবিধা দেয়া বন্ধ করে পড়াশুনায় সহযোগিতা করার দাবী করেন।

শিক্ষা মন্ত্রী আরো বলেন, আগামী বছর থেকে সকল মাধ্যমিক স্তরে কারিগরী শিক্ষার ট্রেড চালু করা হবে। এরই মধ্যে এবছরই ৬৪০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কারিগরী বিষয়ক শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। আগামী বছর ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণীতে একটি ট্রেডে কারিগরী শিক্ষার প্রাথমিক ধারণা পড়ানো হবে এবং নবম-দশম শ্রেণীতে দুটি ট্রেডের মধ্যে একটি বাধ্যতামূলকভাবে কারিগরী শিক্ষা পড়তে হবে। এতে শিক্ষার্থীরা বাস্তবমুখী কারিগরী শিক্ষা লাভ করতে পারবেন।’ মন্ত্রী এসময় মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার শতবর্ষী ‘বীরমোহন উচ্চ বিদ্যালয়’ এর অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাদারীপুর ৩ আসনের সংসদ সদস্য ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ ও সংরক্ষিত সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা তাহমিনা সিদ্দিকী, কালকিনি উপজেলা চেয়ারম্যান মির গোলাম ফারুক, উপজেলা আ’লীগ সাধারন সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান শাহীন, ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, স্কুল কমিটির সভাপতি মনিরুজ্জামান সোহাগ, ঢাকা মহানগড় যুবলীগের সদস্য ও কালকিনি উপজেলা আ’লীগ কমিটির সদদস্য আবু সাহিদ প্রমুখ।

সভায় সভাপতিত্ব করেন শতবর্ষ উদযাপন পরিষদের আহবায়ক ও মন্ত্রী পরিষদের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান। পরে মনোঙ্গ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানে হাজারো শিক্ষার্থীর মিলনমেলায় পরিণিত হয়।