আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্টেট কাউন্সিলর ওয়াং ই বলেন, পাকিস্তানের বৈধ স্বার্থ ও অধিকার রক্ষার জন্য বেইজিং ইসলামাবাদের প্রতি সমর্থন দেয়া অব্যাহত রাখবে। বেইজিং সফররত পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশির সঙ্গে শুক্রবার বৈঠকের পর এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। একই সঙ্গে চীন, ভারত ও পাকিস্তানকে কাশ্মীর ইস্যুতে যেকোনো পদক্ষেপ নেয়া থেকে বিরত থাকার আহ্ববান জানিয়ে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানেরও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

চীনের কৌশলগত বিশেষজ্ঞ এ্যান্ড্রু লিয়াং আরটিকে বলেন, কাশ্মীর পরিস্থিতিতে তার দেশের হাত গুটিয়ে বসে থাকার কোনো সুযোগ নেই। দুটি দেশই যেখানে পারমানবিক শক্তিধর সেখানে উদ্ভুত দ্বন্দ্ব চীনের জন্যে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। পাকিস্তানের চেয়ে ভারত সামরিক ও অর্থনৈতিক দিক থেকে অনেক বড় দেশ। কাশ্মীর ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হলে তা কোনো দেশ এমনকি চীনের জন্যে এ অঞ্চলে ভারসাম্যহীন অবস্থা তৈরি করবে। তাই পাকিস্তানকে কাশ্মীর নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাক বিত-তায় না জড়ানোর পরামর্শ দিচ্ছে বেইজিং। এছাড়া চীন-পাকিস্তান ইকোনোমিক করিডোর প্রকল্পে ৬ হাজার ২০০ কোটি ডলারের অবকাঠামো বিনিয়োগ বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ বিনিয়োগের মধ্যে দিয়ে আফ্রিকা ও চীনের মধ্যে সড়ক, রেল, জাহাজ চলাচল ছাড়াও জালানি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন চলছে। এ পরিস্থিতিতে কাশ্মীর ইস্যুতে কোনো যুদ্ধে জড়ানো সমীচিন মনে করছে না কোনো পক্ষ।