কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি::

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে বিধবা ভাতার টাকা ছিনতাইয়ের ছয় মাস পার হতেই ফের বয়স্ক ভাতার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। সমাজ সেবা অফিসের বারান্দার খুঁটিতে হেলান দিয়ে বসে আছেন মমিরন বেগম। চেহারায় বয়সের ছাপ স্পষ্ট। চোখ দু’টো কোঠরের ভেতর দেবে গেছে। সেখান থেকে গড়িয়ে পড়েছে কয়েক ফোঁটা নোনা জল। আকুতি ভরা দু’চোখ বলতে চাইছে ‘বাবারা তোমরা আমার টাকাটা ফিরিয়ে দাও। এই সামান্য টাকায় তোমাদের তেমন কিছুই হবে না। কিন্তু এই টাকায় আমার তিন মাসের খাওয়ার খরচ চলবে।’

গত মঙ্গলবার দুপুরে তিন মাসের বয়স্ক ভাতার ১৫শ’ টাকা তুলতে সমাজ সেবা অফিসে যান মমিরন বেগম। টাকাটা তিনি পেয়েও যান। কিন্তু উপজেলা পরিষদ চত্বরে ওঁত পেতে থাকা ছিনতাইকারী কৌশলে তাঁর টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

মমিরন বেগম জানান, একজন টাকা গুনে দেয়ার কথা বলে তার কাছ থেকে টাকা নেয়। পরে তা ফেরত না দিয়ে পালিয়ে যায়। মমিরন বেগম ভূরুঙ্গামারী উপজেলার আন্ধারীঝাড় ইউনিয়নের চর বারুইটারী গ্রামের মৃত ওমর আলীর স্ত্রী। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার জন্ম ১৯৩৭ সালে। বয়সের ভারে ঠিকমত কথা বলতে পারেন না তিনি। স্বামী মারা যাবার পর থেকে তিনি ছেলের সাথে আন্ধারীঝাড় ইউনিয়নের চর ধাউরারকুঠি গ্রামে থাকেন। উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে গত বছরের মে মাসে সোনাভান বেওয়া নামের অপর এক বৃদ্ধার বিধবা ভাতার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।

এছাড়াও একাধিকবার বয়স্ক ভাতা ও বিধবা ভাতার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।বয়স্ক নাগরিকদের সাথে ঘটে যাওয়া এরূপ ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবী এলাকার সচেতন মহলের।