ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতার ফারিয়া মাহজাবিনকে তিনদিন পুলিশ হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দিয়েছে আদালত।

হাজারীবাগ থানায় দায়ের করা তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শুক্রবার বিকেলে আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন জানায় পুলিশ। শুনানি নিয়ে ঢাকার মহানগর হাকিম এ কে এম মাইনুদ্দীন তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তবে শুনানিতে ফারিয়ার পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে একটি কফিশপের মালিক ফারিয়াকে বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর পশ্চিম ধানমণ্ডির হাজী আফসার উদ্দিন রোডের বাসা থেকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

এ বিষয়ে শুক্রবার সকালে র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, ফারিয়া বিভ্রান্তিকর তথ্য সংবলিত অডিও রেকর্ড করে ফেসবুক ও মেসেঞ্জারে ছড়িয়ে দেন। ছাত্রদের আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত ও দীর্ঘায়িত করে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর উদ্দেশ্যে তিনি ফেসবুকে উসকানিমূলক মিথ্যা পোস্ট দিয়েছেন।

র‌্যাবের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, ২৮ বছর বয়সী ফারিয়া নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে পড়ালেখা করেছেন। ধানমণ্ডিতে নার্ডি বিন কফি হাউজ নামে তার একটি কফিশপ রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১১টার দিকে গ্রেফতার করার সময় তার মোবাইল ফোনটিও জব্দ করা হয়। সেটি থেকে ফেসবুক ব্যবহার করে গুজব ছড়ানো সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাকে হাজারীবাগ থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করার সময় তার বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তথ্য প্রযুক্তি আইনে ঢাকার বিভিন্ন থানায় আটটি হয়েছে। এসব মামলায় এর আগে বেশ কয়েকজনের গ্রেফতার করা হয়।