স্পোর্টস ডেস্ক:: বিপিএলের শেষভাগে এসে একের পর এক লো স্কোরিং ম্যাচের কারণে মিরপুরের উইকেট নিয়ে প্রবল সমালোচনা হচ্ছে কয়েক দিন ধরে।

বুধবার গ্রুপপর্বের সমাপনী দিনের প্রথম ম্যাচ শেষে আবারও কাঠগড়ায় উইকেট। আরও একটি লো স্কোরিং ম্যাচের সাক্ষী হল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম। তাতে দর্শকদের মন না ভরলেও অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের অলরাউন্ডার নৈপুণ্যে রংপুর রাইডার্সকে (৯৪/৭) ৪৩ রানে হারিয়ে বাজিমাত করেছে ঢাকা ডায়নামাইটস (১৩৭/৭)।

এ জয়ে শীর্ষ দুইয়ে থেকে গ্রুপপর্ব শেষ করল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। বিপিএলে শীর্ষ দুইয়ে থাকার আলাদা মাহাত্ম্য আছে। শীর্ষ দুটি দল ফাইনালে ওঠার দুটি সুযোগ পায়। সেই জোড়া সুযোগ নিশ্চিত করতে ঢাকার সামনে কাল জয়ের বিকল্প ছিল না। ১২ ম্যাচ শেষে ঢাকা ও খুলনার সংগ্রহ সমান ১৫ পয়েন্ট হলেও নেট রানরেটে পিছিয়ে থাকায় তিনে রয়েছে খুলনা। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এক নম্বর জায়গাটি নিশ্চিত করেছে আগেই। শেষ ম্যাচে হেরে চারে থেকে গ্রুপপর্ব শেষ করেছে রংপুর। শুক্রবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে তামিম ইকবালের কুমিল্লার মুখোমুখি হবে সাকিবের ঢাকা। একই দিনে এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনার বিপক্ষে লড়বে রংপুর।

এ ম্যাচে যে দল হারবে, তাদের বিদায়ঘণ্টা বেজে যাবে। আর জয়ী দল রোববার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে মুখোমুখি হবে প্রথম কোয়ালিফায়ারে হেরে যাওয়া দলের। অর্থাৎ ঢাকা ও কুমিল্লার সামনে ফাইনালে ওঠার জন্য দুটি সুযোগ থাকছে। শুক্রবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে জয়ী দল সরাসরি চলে যাবে ফাইনালে। যে দল হারবে, তারা সুযোগ পাবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলে ফাইনালে ওঠার। দুই কোয়ালিফায়ার ম্যাচের দুই বিজয়ী দল আগামী মঙ্গলবার মুখোমুখি হবে ফাইনালে।

কাল জিতলেও রংপুরের পক্ষে শীর্ষ দুইয়ে থাকা সম্ভব ছিল না। অধিনায়ক মাশরাফি মুর্তজা ও ক্রিস গেইলকে বিশ্রামে রেখে একাদশে তাই সাতটি পরিবর্তন এনেছিল রংপুর। নতুন চেহারার দল নিয়ে ঢাকার সঙ্গে শেষ পর্যন্ত পেরে ওঠেনি তারা। ব্যাটিংয়ে দু’দলের শুরুটাই অবশ্য ছিল একই রকম হতশ্রী। ঢাকা প্রথম পাঁচ উইকেট হারিয়েছিল ৪৮ রানে। রংপুর ৪০ রানে। সেখান থেকে ঢাকাকে সাকিব উদ্ধার করলেও রংপুর পায়নি কোনো ত্রাতা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা ঢাকা এগিয়েছে ধুঁকতে

ধুঁকতে। দশম ওভারে ৪৮ রানে পাঁচ উইকেট হারানোর পর মেহেদি মারুফকে নিয়ে এক জুটিতেই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন সাকিব। ষষ্ঠ উইকেটে ৫৫ রানের অমূল্য জুটি গড়েন তারা। ২৩ বলে ৩৩ করে মারুফ বিদায় নিলেও দুটি করে চার-ছক্কায় ৩৩ বলে ৪৭ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব। বিপিএলের চলতি আসরে ব্যাটসম্যান সাকিবের সেরা ইনিংস এটি। সাকিব-ঝড়ে শেষ সাত ওভারে ঢাকা তুলেছে ৭৬ রান। এ উইকেটে ১৩৮ রানের লক্ষ্যটা সহজ ছিল না। ছন্নছাড়া ব্যাটিংয়ে রংপুরের ব্যাটসম্যানরা সেটাকে হিমালয় বানিয়ে ফেলেন। বোলার সাকিব ছিলেন আরও দুর্দান্ত। চার ওভারে মাত্র ১৩ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন ম্যাচসেরা সাকিব। এছাড়া ২৩ রানে দুই উইকেট নেন আবু হায়দার রনি। ঢাকার দারুণ বোলিংয়ে সাত উইকেটে ৯৪ রানের বেশি তুলতে পারেনি রংপুর। সর্বোচ্চ ২৮* রান আসে রবি বোপারার ব্যাট থেকে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ঢাকা ডায়নামাইটস ১৩৭/৭, ২০ ওভারে (এভিন লুইস ১৪, মোসাদ্দেক হোসেন ১০, মেহেদি মারুফ ৩৩, সাকিব ৪৭*। রুবেল হোসেন ২/৩২, এবাদত হোসেন ২/৩৭)। রংপুর রাইডার্স ৯৪/৭, ২০ ওভারে (জনসন চার্লস ২৬, রবি বোপারা ২৮*, নাহিদুল ইসলাম ১৩। সাকিব ২/১৩, আবু হায়দার ২/২৩)।

ফল : ঢাকা ডায়নামাইটস ৪৩ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : সাকিব আল হাসান