স্পোর্টস ডেস্ক::

চতুর্থ দিনের শুরুতে এক্সট্রা বাউন্স পাচ্ছেন পেসাররা। বাড়তি টার্ন পাচ্ছেন স্পিনাররা। কিছু বল আপ-ডাউন করছে। ফলে কঠির চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা। সেই চ্যালেঞ্জ উতরাতে পারলেন না মুমিনুল হক। কাইল জার্ভিসের আউটসুইঙ্গারে প্লেড অন হয়ে ফিরলেন তিনি।

এর আগে যথাসম্ভব বলের গুণাগুণ বজায় রেখে খেলার চেষ্টা করেন লিটন। তা সত্ত্বেও হার মানতে হয় তাকে (২৩)। সিকান্দার রাজার এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফিরতে বাধ্য হন তিনি। শেষ খবর পর্যন্ত ২ উইকেটে ৭৫ রান করেছে স্বাগতিকরা। ইমরুল ৪০ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। জয়ের জন্য এখন দরকার ২৪৬ রান।

জিততে পারলে অনন্য দুটি রেকর্ড হবে। নিজেদের টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড গড়বে বাংলাদেশ। আগের রেকর্ডটি ২১৫। ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এ রান তাড়া করে জেতে টাইগাররা।

বাংলাদেশের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে সবচেয়ে বড় রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড নিউজিল্যান্ডের। ২০০৮ সালে ৩১৭ রান তাড়া করে জয় ছিনিয়ে নেয় কিউইরা। এবার জিততে পারলে তাই একইসঙ্গে দুটি রেকর্ড নতুন করে লিখবে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী।

তৃতীয় দিন আলোকস্বল্পতায় ১৩.৫ ওভার কম হওয়ায় এদিন নির্ধারিত সময়ের আধ ঘণ্টা আগে (সকাল সাড়ে ৯টা) খেলা শুরু হয়। আগের দিনের ২৬ রান নিয়ে ব্যাট করতে বাংলাদেশ দুই ওপেনার নামেন ইমরুল-লিটন।