স্পোর্টস রিপোর্টার:: রাশিয়া বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালের শেষ দিনে আজ মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড-সুইডেন। ইউরোপিয়ান ফুটবলের দৃষ্টিকোণ থেকে কঠিনতম এক ম্যাচ। কারণ অতীত লড়াইগুলোতে দুই দলের পরিসংখ্যানই প্রায় সমানে-সমান। তাই আজ যে লড়াইটাও সমানে-সমান হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সামারা অ্যারেনায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ সময় রাত আটটায়।

রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে ইতিমধ্যে বাদ পড়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দলগুলো। তাই এই সুযোগে লড়াই হবে ইউরোপিয়ানদের মধ্যে। নিজেদের মধ্যেকার লড়াইয়ের পর ফিফা বিশ্বকাপের ২১তম আসরের সোনালি শিরোপাটাও থাকছে ইউরোপিয়ানদের ঘরেই।

আজকের ম্যাচে পরিসংখ্যান বাদ দিলেও তারকাখ্যাতি ও শক্তির বিচারে সুইডেনের বিপক্ষে এগিয়ে থাকবে ইংলিশরাই। কারণ গ্রুপ পর্ব থেকেই নিজেদের দারুণ ফুটবলে সবার মন ভরিয়েছে হ্যারিকেনরা। তাছাড়া বিশ্বকাপে কখনও টাইব্রেকারে না জেতা ইংলিশদের সেই ফাঁড়াও কাটলো এবার। শেষ ষোলোর ম্যাচে টাইব্রেকারের অগ্নিপরীক্ষায়ও শেষ পর্যন্ত কলম্বিয়ার বিপক্ষে জয় পায় হ্যারিকেনের দলই। তাই আজ পূর্ণ আত্মবিশ্বাসী হয়েই সুইডেনের বিপক্ষে মাঠে নামবে ইংল্যান্ড। তবে ইংলিশদের ছাড় দিবে না সুইডেনরাও। ইংলিশদের বিপক্ষে শেষ দেখার জয়ই আজ সুইডেনের মূল আত্মবিশ্বাস।

অতীতে সর্বমোট ২৪ বার মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ড-সুইডেন। যার মধ্যে সাতটিতে জয় পেয়েছে সুইডেন, আটটিতে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। বাকি নয় ম্যাচ ড্র হয়। ২০০২ ও ২০০৬ সালে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল ইংল্যান্ড ও সুইডেন। দুবারের দেখায়ই ড্র হয়। ২০০২ সালে ১-১। ২০০৬ সালে ২-২। ২০১২ সালে শেষ দেখা হয়েছিল এই দুই দলের। সেবারে ৪-২ গোলে ইংল্যান্ডকে হারিয়েছিল সুইডেন। চারটি গোলই করেন ফরোয়ার্ড জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। যদিও এই বিশ্বকাপে নেই তিনি। তারপরও সেই জয়টাই হতে পারে সুইডেনের আত্মবিশ্বাস। সবকিছু মিলিয়ে দুই কঠিন প্রতিপক্ষই আজ মুখোমুখি হবে। আর এই ম্যাচে যারা জিতবে তারাই পাবে সেমিফাইনালের টিকিট।

দুই দলের সম্ভাব্য একাদশ-

সুইডেন একাদশ : রবিন ওলসেন, মিকায়েল লাসটিগ, ভিক্টর নিলসন লিন্ডেলফ, আন্দ্রেস গ্রাঙ্কভিস্ট, লুডউইগ অগাস্টিনসন, ভিক্টর ক্লায়েসন, গুস্তাভ এসভেনসন, আলবিন একদাল, এমিল ফরসবার্গ, মার্কাস বার্গ, ওলা তোইভোনেন।

ইংল্যান্ড : (৩-৫-২) পিকফোর্ড, ওয়াকার, স্টোনস, ম্যাগুইর, ট্রিপিয়ার, হেন্ডারসন, ডেলে আলি, লিংগার্ড, ইয়ং, স্টারলিং ও হ্যারি কেইন।