গাজীপুর প্রতিনিধি::

গাজীপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় চারজন নিহত হয়েছেন। এঘটনায় কমপক্ষে আরও ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার, তার গাড়ি চালক এবং দেহরক্ষীও রয়েছেন।

শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) সকালে জেলার চার জায়গায় সড়ক দুর্ঘটনায় হতাহতের এসব ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান।

গাজীপুর সদর থানার ওসি মো. আলমীগর ভূঁইয়া জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজেন্দ্রপুর এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটের এনা পরিবহনের একটি বাস সামনে থাকা একটি কভার্ড ভ্যানকে পেছন থেকে জোরে ধাক্কা দেয়। তাতে বাসটির সামনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়; কভার্ডভানটিও কাত হয়ে পড়ে যায়।

এ ঘটনায় বাসের দুই যাত্রী নিহত এবং ২৭ যাত্রী আহত হন। তাদের উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। হতাহতদের নাম তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

মাওনা হাইওয়ে থানার এসআই আইয়ুব হাসান জানান, সকাল ১০টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের জৈনাবাজার এলাকায় এক বৃদ্ধ (৭০) মহাসড়ক পার হচ্ছিলেন। এসময় ময়মনসিংহগামী একটি পিক-আপ চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

পরে তার মরদেহ উদ্ধার করে মাওনা হাইওয়ে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

এর আগে সকাল পৌনে ৮টার দিকে গিলাবেড়াইদ এলাকায় ২০ বছর বয়সী এক যুবক মহাসড়ক পার হওয়ার সময় ময়মনসিংহ থেকে ঢাকাগামী একটি বাস তাকে ধাক্কা দেয়। মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয় বলে মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি মঞ্জুরুল হক জানান।

তিনি বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে ও পরিচয় জানতে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ সিনেট অধিবেশনে যোগ দিতে যাওয়ার পথে গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর এলাকায় দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান।

তার গাড়ির চালক হেলালুর রহমান ও দেহরক্ষী বডিগার্ড আব্দুল বারেকও এ ঘটনায় আহত হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের অবাসিক চিকিৎসক মো. রফিকুল ইসলাম জানান, মুস্তাফিজুর রহমানের মাথা, হাত ও পায়ে জখম হয়েছে। তার গাড়িচালক ও দেহরক্ষী শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছেন। তবে তারা সবাই শঙ্কামুক্ত।