স্পোর্টস ডেস্ক::

২০২০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি ছিল প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের। তবে বিশ্বকাপে আশানুরূপ পারফরম্যান্স না পাওয়ায় অনেক আগেই ইংলিশ কোচের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করলো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাই বাংলাদেশের কোচ হিসেবে আর থাকছেন না রোডস।

সোমবার বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘দুই পক্ষের সমঝোতার ভিত্তিতে (রোডসের সঙ্গে) চুক্তি বাতিল হয়েছে। ২২ জুলাই বোর্ড সভায় শ্রীলঙ্কা সফরে কোচ কে থাকবেন, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

বিশ্বকাপ শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। এরইমধ্যে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার প্রস্তুতিও শুরু হয়ে গেছে। সূচি নিশ্চিত না হলেও সোমবারই বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, এ মাসের শেষ দিকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে খেলতে শ্রীলঙ্কায় যাবে বাংলাদেশ দল। বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলতে না পারার হতাশার মধ্যে শোনা যাচ্ছিল, শ্রীলঙ্কা সফরই হতে যাচ্ছে স্টিভ রোডসের শেষ মিশন। তবে বিসিবি তার আগেই চুক্তি বাতিল করেছে ইংলিশ কোচের সঙ্গে।

২০২০ সালের অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। ওই পর্যন্ত বিসিবির সঙ্গে চুক্তি ছিল রোডসের। কিন্তু ১৬ মাস আগেই শেষ হয়ে গেল তার বাংলাদেশ অধ্যায়।

২০১৮ সালের ৭ জুন জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে রোডসকে নিয়োগ দেয় বিসিবি। চন্ডিকা হাথুরুসিংহের ছেড়ে যাওয়া চেয়ারে বসে শুরুটা মোটেও ভালো ছিল না তার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ দিয়ে নামা মিশনে হারতে হয় ২-০ ব্যবধানে। যদিও ক্যারিবিয়ানদের মাটিতে ওয়ানডেতে ঘুরে দাঁড়িয়ে পায় ৩-১ ব্যবধানের জয়।

তবে রোডসের সেরা সাফল্য আসে ২০১৮ সালের এশিয়া কাপে। দারুণ পারফরম্যান্সে সংযুক্ত আরব আমিরাতের টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ জায়গা করে নেয় ফাইনালে। যদিও ভারতের বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটিতে শেষ বলে হার মানতে হয় টাইগারদের।

এবারের ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের বিশ্বকাপেও বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে শুরু করা মিশনে সেই ধারাটা শেষের দিকে আর ধরে রাখতে পারেনি মাশরাফিরা। অষ্টম হয়ে শেষ করতে হয়েছে বিশ্বকাপ। ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ দুই ম্যাচের পারফরম্যান্সই মোটা দাগে চোখে পড়েছে বেশি। রোডসের চাকরি হারানোর নেপথ্যে যা হতে পারে বড় প্রভাবক!