নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি::

আপনাদের পাশে থেকে দেশ ও জনগনের কল্যাণে কাজ করতে চাই। আমার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই। আমি রাজনীতির উর্দ্ধে থেকে দরিদ্র অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে ১৫ বছর যাবত ঈদের আনন্দ ভাগ করে নিতে বার বার আপনাদের পাশে ছুঁটে আসি। আপনাদের তথা জনগনের ভালবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে চাই আমি।

আজ রোববার ঢাকার নবাবগঞ্জের আগলা মহাকবি কায়কোবাদ স্কুল মাঠে দারিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে শাড়ি লু্ঙ্গি বিতরণকালে সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি অ্যাভোকেট সালমা ইসলাম এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি পবিত্র ঈদ উপলক্ষ্যে ৫ টি ইউনিয়নে নিজস্ব অর্থায়নে ১হাজার করে শাড়ী ও লুঙ্গি বিতরণ করেন। আগলা, চুড়াইন, গালিমপুর, বক্সনগর ও বাহ্রা ইউনিয়নে দরিদ্র অসহায় মানুষকে ঈদ উল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি এসব উপহার বিতরণ করেন।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আমার স্বপ্ন দোহার ও নবাবগঞ্জের মানুষের কল্যাণে কাজ করা। আপনারা জানেন, বিগত ১০বছর আমি এই এলাকার উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছি। গ্রামে গ্রামে কাঁচা পাকা সড়ক তৈরীসহ ইছামতি ও কালিগঙ্গা নদীতে ব্রীজ তৈরী করে দিয়েছি। এই অঞ্চলের প্রতি এলাকা এখন বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ভবন নির্মান, দোহার নবাবগঞ্জ কলেজ জাতীয়করণসহ মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম প্রতিষ্ঠায় সার্বিক সহযোগিতা করেছি। তিনি সুখে ও দুঃখে এলাকাবাসীর পাশে থাকার ইচ্ছা ব্যক্ত করে বলেন, বিগত সময়ে আপনাদের পাশে ছিলাম, আগামী দিনেও থাকবো ইনশাল্লাহ। কোন ভয় নেই, আল্লাহ আমার আপনাদের পাশে রয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির নেতা খলিলুর রহমান, একে.এম আব্দুল হালিম, মো. শাহজাহান, সেলিম সিকদার, মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুুল, এসএম ওসমানী হেন্টু, মুরাদ মিয়া, কফিল উদ্দিন, আব্দুল মান্নান মাষ্টার, আসাদুজ্জামন চৌধুরী রানা, আনোয়ার হোসেন মোড়ল, তাজুল ইসলাম, ফরিদ হোসেন, যুব নেতা যুবরাজ নাজিম উদ্দিন, এসএম মোস্তারিম মিথুন, বোরহান হোসেন, সেলিম হোসেন, নারী নেত্রী তানজিনা আহমেদ, ছাত্র নেতা মো. শাহীন, মাসুদুর রহমান প্রমূখ।