ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোট দুটি কেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হয়। আজ মঙ্গলবার বিকেল চারটায় ভোট গ্রহণ শেষে আধা ঘণ্টার মধ্যেই ভোট গণনা হয়ে যায়। সাড়ে চারটার দিকে বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা।

ওই দুটি কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে এগিয়ে আছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেকের নৌকা প্রতীক। তিনি পেয়েছেন ৭৭৭ ভোট। আর ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু পেয়েছেন ৭১০ ভোট। তবে দুটি কেন্দ্রের একটিতে খালেক ও অন্যটিতে নজরুল জিতেছেন।

কেন্দ্র দুটির একটি হলো প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের (পিটিআই) জসিমউদ্‌দীন হোস্টেল কেন্দ্র। ওই কেন্দ্রের মোট ভোটার ছিল ১ হাজার ৮৭৯ জন। কেন্দ্রটি ছিল পুরুষ ভোটার কেন্দ্র। অন্যটি সোনাপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। ভোটার ছিল ১ হাজার ৯৯ জন। কেন্দ্রটি ছিল নারী ভোটারদের জন্য।

পিটিআই কেন্দ্রের বেসরকারি ফলাফলে জানা গেছে, ওই কেন্দ্রে মোট ভোট গ্রহণ হয়েছে ১ হাজার ৭৭টি। এর মধ্যে বিএনপি প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫১১ ভোট, তালুকদার আবদুল খালেকের নৌকা প্রতীক পেয়েছে ৫০৫ ভোট। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মুজ্জাম্মিলন হকের পাখা প্রতীক পেয়েছে ৪৩ ভোট। জাতীয় পার্টির শফিকুল ইসলাম ওরফে মুসফিকের লাঙ্গল প্রতীক পেয়েছে ১১ ভোট এবং সিপিবি প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবুর কাস্তে প্রতীক পেয়েছে ৭ ভোট। ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. মামুন সরদার ওই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোনাপোতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ভোট গ্রহণ হয়েছে ৫২০টি। এর মধ্যে ২৭২ ভোট পেয়েছে নৌকা, ১৯৯ ভোট পেয়েছে ধানের শীষ, হাতপাখা পেয়েছে ৩২ ভোট, লাঙ্গল ১৩ ও কাস্তে প্রতীক পেয়েছে ৪ ভোট।
খুলনায় এবার প্রথমবারের মতো ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হয়েছে।