ই-কণ্ঠ অনলাইন ডেস্ক::

টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়া আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বার্ষিক আয় ২১ লাখ ৩৪ হাজার ৬৩৪ টাকা। কৃষি জমি, বাড়ি ভাড়া ও রয়্যালিটি বাবদ তিনি এই অর্থ আয় করেন। একাদশ সংসদ নির্বাচনে গোপালগঞ্জ-৩ ও রংপুর-৬ আসনে সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসেবে জমা দেওয়া হলফনামা থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এবারের নির্বাচনে তিনি গোপালগঞ্জ-৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। রংপুর-৬ আসনে মনোনয়ন জমা দিলেও বাছাইয়ের পরে প্রতীক বরাদ্দের চিঠি দেওয়া হয় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে।

হলফনামা অনুযায়ী আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার স্থাবর সম্পদের মধ্যে ৬ একর কৃষি জমি রয়েছে। যার অর্জনকালীন মূল্য ৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। পাশাপাশি যৌথ মালিকানায় ৫ একর কৃষি জমি রয়েছে; যার ৫০ ভাগের মালিক তিনি।

এ ছাড়াও ৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা (অর্জনকালীন) মূল্যের অকৃষি জমি রয়েছে। তিনি বছরে আয় করেন ২১ লাখ ৩৪ হাজার ৬৩৪ টাকা। এর মধ্যে কৃষিখাতে তিন লাখ টাকা, বাড়িভাড়া থেকে এক লাখ ৩৮ হাজার ৬২৫ টাকা, ব্যবসা (রয়্যালিটি বাবদ) ১৬ লাখ ৯৬ হাজার ৯ টাকা। তার কোনো দায়দেনা নেই।

অস্থাবর সম্পদের মধ্যে নগদ টাকা রয়েছে তার ৮৪ হাজার ৫৭৫ টাকা। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ সাত কোটি ২১ লাখ ৮৫ হাজার ৩০৩ টাকা। পোস্টাল সেভিংস সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়পত্রে বা স্থায়ী আমানত খাতে পাঁচ লাখ টাকা। এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর সাত লাখ ৪০ হাজার টাকা মূল্যের আসবাবপত্র, ১৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা মূল্যের অলঙ্কারাদি ৬ লাখ টাকা মূল্যের (দানে প্রাপ্ত) গাড়ি রয়েছে।