ঝিনাইদহ প্রতিনিধি॥

ঝিনাইদহে মহেশপুর উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের মাঠ থেকে নিখোঁজের ৬ দিন পর রিতু খাতুন নামের এক গৃহবধুর গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। রিতু খাতুন ওই গ্রামের আব্দুর সবুরের মেয়ে ও একই উপজেলার পদ্মরাজপুর গ্রামের মোমিন তরফদারের ছেলে সাগর হোসেনের স্ত্রী।

ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কোটচাঁদপুর সার্কেল) আতিক হাসান জানান, বুধবার সকালে ডাকাতিয়া গ্রামের একটি হলুদ ক্ষেতে গলিত লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরিবারের লোকজন এতে রিতুর পরিচয় শনাক্ত করে। পুলিশ পরে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। গত ৩১ অক্টোবর রিতু পিতার বাড়ী থেকে শ্বশুরবাড়ী একই উপজেলার পদ্মরাজপুর গ্রামে যাওয়ার জন্য বাড়ী থেকে বের হয়। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিল সে।

রিতুর স্বজনরা জানান, রিতু গুড়দাহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী ছিলেন। গত ৭ মাস আগে একই উপজেলার পদ্মরাজপুর গ্রামের মোমিন তরফদারের কলেজ পড়ুয়া ছেলে সাগরের সাথে প্রেমের সর্ম্পকের জেরে তারা যশোর গিয়ে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ের জন্য চুক্তিবন্ধ হয়। সে সময় শর্ত ছিল মেয়ে এসএসসি ও ছেলে এইচএসসি পাশ না করা পর্যন্ত বিয়ের বিষয়টি গোপন থাকবে। কিন্তু বিষয়টি ফাঁস হয়ে গেলে উভয় পরিবারের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে।