জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি॥

টর্নেডোর আঘাত লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন লন্ডভন্ড হয়ে পড়েছে। এই ঝড়ে প্রায় ৫শতাধিক কাঁচা-পাকা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। টর্নেডোর আঘাতে আলেজা বেগম (৫০) নামে এক মধ্য বয়সী নারী নিহত হয়েছে। নিহত আলেজা বেগম উপজেলার শ্রীরামপুর ইউনিয়নের শৌলমারী গ্রামের ইব্রাহিম হোসেন স্ত্রী।

বোববার (১৪ জুলাই) ভোররাতে টর্নেডোর আঘাতে পাটগ্রাম উপজেলার চার ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানান পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল করিম।

স্থানীয়রা জানান, ভারতের অভ্যন্তরে শুরু হওয়া টর্নেডো বাংলাদেশে প্রবেশ করে প্রথমে পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রামে আঘাত হানে। পরে একে একে পাটগ্রাম, বুড়িমারী ও শ্রীরামপুর ইউনিয়নের হানা দেয়। এতে শত শত ঘরবাড়িসহ গাছপালা উপড়ে মাটির সাথে মিশে যায়। এ সময় টর্নেডোর ঝড়ে গাছ পড়ে মারা যায় আলেজা নামে একজন মধ্য বয়সী নারী এবং আহত হয় শতাধিক মানুষ। তারা বর্তমানে পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। হঠাৎ করে সৃষ্টি হওয়া এই টর্নেডোর আঘাতে বেশির ভাগ ঘরবাড়িই বিধ্বস্থ হয়ে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। বর্তমানে ওই পরিবারের লোকজন এখন খোলা আকাশের নিচে রয়েছে।

টর্নেডোর আঘাতের বর্ণনা দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত্র দহগ্রামের আছির উদ্দিন জানান, কেউ কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই দেখতে পান হঠাৎ ঝড়ে তাদের মাথার ওপর থেকে বসতঘরের টিনের চালা উড়ে গেছে। কারও কারও বসতঘর ৬-৭শ’ মিটার দূরে উড়ে গিয়ে ধানক্ষেতে পড়েছে।

খবর পেয়ে পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল করিম সাত্তার ক্ষতিগ্রস্থ ওই ৪টি ইউনিয়ন পরির্দশন করেছেন। তিনি বলেন, ‘শনিবার রাতে ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে আসা টর্নেডোটি দহগ্রাম, পাটগ্রাম, বুড়িমারী ও শ্রীরামপুর ইউনিয়নে আঘাত হানার পর আবারও ভারতের দিকে চলে যায়। এ সময় শ্রীরামপুরে একটি ঘরের ওপর গাছ ভেঙে পড়লে আলেজা বেগম নামে এক নারী নিহত ও তার দুই নাতিসহ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। বর্তমান সৃষ্ট বন্যার মোকাবেলা করতে না করতে হঠাৎ করে এই টর্নেডোর ক্ষতি সামলানো একটু কঠিন হয়ে গেল। তারপরেও উপজেলা প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের খোঁজ খবর নিচ্ছে এবং তাদের সহযোগীতা করার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসকের দায়িত্বে থাকা এডিসি (রাজস্ব) আহসান হাবীব বলেন, ‘পাটগ্রামে টর্নেডোর আঘাতে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তা নির্ণয়ের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা যথাসাধ্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছি।’