স্পোর্টস ডেস্ক::

বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের প্রত্যেককে প্রতিমাসে ১ লাখ টাকা করে দেবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এ তথ্য জানিয়েছেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

বুধবার অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা দেশে ফেরেন। বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে দেশের মাটিতে পা রাখার পর বিমানবন্দর থেকে সোজা তাদের নিয়ে আসা হয় মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। সেখানে রাত ৮টায় সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পাপন।

সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বিশ্বকাপ বিশ্বকাপ। এর ওপরে কিছু হতে পারে না। এসিসির জন্য সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট এশিয়া কাপ, আইসিসির জন্য বিশ্বকাপ। ক্রিকেটে বিশ্বকাপের ওপরে কিছু হয় না। এই চ্যাম্পিয়ন আগামী দুই বছর থাকবে বাংলাদেশ। এই সময়টাতে আমরা গর্বে থাকতে পারব, এটাই বড় কথা।’

যুবাদের জন্য নতুন ঘোষণা দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। যুবারা আগামী দুই বছর চুক্তিতে তারা। বেতন হিসেবে প্রতিমাসে এক লাখ টাকা করে পাবে। তবে কেউ বিচ্যুতি হয়ে গেলে তার চুক্তি থেকে বাদ পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ দল দেশের মাটিতে পা রেখেছে বুধবার বিকালে। বিমানবন্দরে তাদের বরণ করে নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। এ সময় ছিলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। যুবারা বিমানবন্দরে আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে বেরিয়ে আসেন।

আকবরদের এক নজর দেখতে বিমানবন্দরে প্রচুর লোক সমাগম হয়েছে। অনেকে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে বিমানবন্দরে হাজির হয়েছেন। বিমানবন্দরে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান তাদের নিয়ে বেরিয়ে আসেন। এরপর সবার গলায় ফুলের মালা পরিয়ে দেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে তানজিদ হাসান সাকিব বলেন,‘ অসাধারণ এক অনুভূতি। খুবই ভালো লাগছে।’ বোলিংয়ে কেন এত বেশি আক্রমণাত্মক ছিলেন? সাকিবের উত্তর,‘ ওটা না করলে আমরা পারতাম না। টিম স্পিরিট বাড়ত না।’

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে সেঞ্চুরি করা মাহমুদুল হাসান জয় বলে গেলেন,‘ এটা আমাদের কঠোর পরিশ্রমের ফল। আমরা একসঙ্গে টিম স্পিরিট নিয়ে খেলেছি। আশা করি ভবিষ্যতে আরো ভালো কিছু হবে।’

চোটের কারণে বিশ্বকাপের মাঝপথে ফিরে এসেছিলেন পেসার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরি। তিনি জানিয়েছেন, এই অনুভূতি ভোলার মতো নয়,‘ এটা আসলে বলে বোঝাতে পারব না। আমি এই দলের সাথে খেলেছি। দূর্ভাগ্যবশত আমাকে ফিরে আসতে হয়েছে। ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা আসলে অন্যরকম এক অনুভূতি।’