ফিচার ডেস্ক:: ২০১৮ সালে প্রথমবারের মত সূর্যের মুখ দেখলো রাশিয়া। বলতে গেলে ৪০ দিন পর প্রথম সূর্যোদয় সেখানে। এতোদিন অন্ধকারে আচ্ছন্ন ছিলো দেশটির উত্তর অংশ। তাই সূর্যের আলো নয়, বরং রাতের আঁধার দিয়েই নতুন বছরের প্রথম দিনটিকে বরন করে নিয়েছিলো উত্তর রাশিয়ার মানুষজন।

নতুন বছরের শুরু থেকে টানা ৪০ দিন পার করে অবশেষে গেল শুক্রবার ২০১৮ সালের প্রথম সূর্যোদয় দেখল স্থানীয় বাসিন্দারা। দীর্ঘদিন পর শীতকালীন আকাশে ‘সূর্যমামা’কে দেখে রীতিমত উৎসবে মেতেছে রাশিয়ার এ অঞ্চলের মানুষজন। লোকজন বেশ হৈ-হুল্লোড়েও মাতেন বছরের প্রথম সূর্যোদয় দেখার পর।

রোমাঞ্চকর সময়টা উপভোগ করতে স্থানীয়রা ছুটে আসেন খোলামেলা এবং উঁচু জায়গায়। সেলফি তোলাও বাদ যায়নি। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে মাত্র ৩০ মিনিট থেকেই নিভে যায় সূর্যের আলো। আবার নেমে আসে রাতের আঁধার।

এটি প্রকৃতির একটা নিয়ম, বিজ্ঞানের ভাষায়, একে ‘পোলার নাইট’ বলা হয়। এর প্রভাবে আর্কটিক বৃত্তের মধ্যে থাকা অঞ্চলগুলি ২৪ ঘণ্টার বেশি সময় পুরোপুরি অন্ধকারে ছেয়ে যায়। রাশিয়ার আর্কটিক পোর্ট ‘মুরমানস্কে’ দেখানো হয়েছে, ডিসেম্বরের ২ তারিখ থেকে জানুয়ারির ১১ তারিখ পর্যন্ত ৪০ দিন রাশিয়ার অঞ্চলটি সূর্যের আলো দেখা যাবে না।

যে কারণে দিনটি আসার আগে সবার আলাদাভাবে প্রস্তুতি সেরে পেলেন। ‘পোলার নাইট’ এবং নতুন বছরের সূর্যোদয় ঐতিহ্যগতভাবে অবলোকন করে থাকে তারা। শহরের সবচেয়ে উঁচু পর্বত ‘সোলোঞ্চিয়া গোর্কা’ রুশ ভাষায় যেটি সানি হিল নামে পরিচিত। ওই পাহাড়ে দাড়িয়ে বছরের প্রথম সূর্যোদয়কে স্বাগত জানায় উত্তর রাশিয়ার অসংখ্য মানুষ।