স্পোর্টস ডেস্ক::

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এবারের আসরে কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি থাকবে না। বঙ্গবন্ধুর নামে এবারের বিপিএল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডই (বিসিবি) আয়োজন করার উদ্যেগ নিয়েছে। সেই লক্ষ্য ডিসেম্বরে পর্দা উঠা বিপিএলের সপ্তম আসরের সূচি প্রকাশ করেছে বিসিবি।

৭ দলের এবারের সপ্তম বিপিএল টুর্নামেন্টের ম্যাচ সংখ্যা ৪৬টি। আগের আসরের সাতটি দলকে নিয়ে নির্ধারিত সূচিতে বিপিএলের সপ্তম আসর শুরু হবে আগামী ৬ ডিসেম্বর। তার আগে ৩ ডিসেম্বর হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

মিরপুর, চট্টগ্রাম ও সিলেট ভেন্যুতে মাঠে গড়াবে এবারের আসর। ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হবে ফাইনাল ম্যাচ। রাখা হয়েছে রিজার্ভ ডেও।

অংশগ্রহণকারী দলগুলো : চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, ঢাকা, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর ও সিলেট।

এক দলে সর্বোচ্চ ২২জন খেলোয়াড় রাখা যাবে (৯জন বিদেশী, ১৩জন দেশীয় খেলোয়াড়)। এক ম্যাচে তিন জন বিদেশী খেলোয়াড়কে খেলাতে হবে (বাধ্যতামূলক)।

টুর্নামেন্ট ফরম্যাট :

লিগ পর্বে ৭ দলের মুখোমুখিতে সর্বমোট ম্যাচ সংখ্যা : ৪২টি।

৭ দলের মধ্য থেকে লিগ রাউন্ডের খেলা শেষে সেরা ‘৪ দল’ প্লে-অফ এ জায়গা করে নিবে। প্লে-অফে হবে মোট ৩টি ম্যাচ। প্রথম কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ম্যাচ ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ। প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে খেলবে লিগ পর্বের প্রথম দুই দল। জয়ী দল ফাইনালে যাবে। আর এলিমিনেটর ম্যাচ খেলবে টেবিলের তৃতীয় ও চতুর্থ দল। এই ম্যাচের জয়ী দল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচের পরাজিত দলের মুখোমুখি হবে। বিজয়ী দল ফাইনালে যাবে, আর পরাজিত দল তৃতীয় স্থানের অধিকারী হবে।

লিগ পর্বের ম্যাচগুলো হবে ২১ দিন (প্রত্যেক দিন ২টি করে ম্যাচ), ৩ দিন হবে প্লে অফ এর ম্যাচ গুলো। প্লে-অফের সব ম্যাচেই রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে।

৩০ থেকে ৩৬টি অত্যাধুনিক ক্যামেরার সঙ্গে ব্যবহার করা হবে এই আসরে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে স্পন্সরের খোঁজ করছে বিসিবি। সেখানেই নিয়ম কানুনের কথা জানিয়েছে বিসিবি।