বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক:: কবে আসবে ভাঁজ করা স্মার্টফোন? এ প্রশ্ন অনেকেরই। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভাঁজ করা যাবে—এমন ফোন তৈরি করছে বলে অনেক দিন ধরেই গুঞ্জন রয়েছে। কিন্তু এখনো সে ‘চমক’ বাজারে ছাড়েনি।

বিশ্লেষকেরা আশা করছেন, খুব বেশি দেরি নেই, আগামী বছরই চমক দেবে স্যামসাং। ২০১৯ সালে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ওই ফোনের ঘোষণা দিতে পারে প্রতিষ্ঠানটি।

ইউরোপের পুরোনো একটি শহরে প্রতিবছর বিশ্বের সবচেয়ে ভবিষ্যকল্প ঘটনা আর পণ্যগুলো নিয়ে একটি অনুষ্ঠান হয়। আধুনিক বিজ্ঞানপ্রযুক্তি কতটা এগিয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে এরই প্রদর্শনী হয় স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে।

বাজার বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, এর আগে ভাঁজ করা স্মার্টফোনটি ভ্যালি কোডনামে তৈরি করছিল স্যামসাং। এখন এটি উৎপাদন পর্যায়ে নিতে কোডনাম পরিবর্তন করে ‘উইনার’ রেখেছে।

অবশ্য ভাঁজ করা ওই স্মার্টফোন মডেল বাজারে আসার আগে স্যামসাংয়ের আরেকটি ‘চমক’ নিয়েও আলোচনা হচ্ছে। তা হচ্ছে, গ্যালাক্সি সিরিজে এস৯-এর পরবর্তী সংস্করণ, অর্থাৎ, এস ১০ মডেল। অথচ এস৯ ও এস৯ প্লাস বাজারে আসার দুই মাস পেরোল কেবল। প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইটগুলোয় নতুন স্মার্টফোনটির বিভিন্ন ফিচার তুলে ধরা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, ভাঁজ করা মডেলের স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ার আগে জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় কনজুমার ইলেকট্রনিক শোতে (সিইএস ২০১৯) এস১০ মডেলটির ঘোষণা দেবে স্যামসাং।

আগামী বছরের ৮ থেকে ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত সিইএস সম্মেলন হবে।

দ্য বেলস রিপোর্ট নামের একটি ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, ভাঁজ করা স্মার্টফোন বাজারে আনতে এস১০ মডেলটি একটু আগেভাগেই বাজারে ছাড়বে স্যামসাং।

ভাঁজ করা স্মার্টফোন তৈরির যন্ত্রাংশ কেনাকাটার কাজ এ বছরের নভেম্বর থেকেই শুরু হয়ে যাবে। শুরুতে প্রতি মাসে তিন লাখ থেকে পাঁচ লাখ ইউনিট ফোন বাজারে ছাড়া হবে।

বিভিন্ন সূত্রের বরাতে নতুন স্মার্টফোন ঘিরে নানা তথ্য প্রকাশ করা হলেও স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। বাজারে ছাড়ার আগে পরিকল্পনা কিছু পরিবর্তন আনতে পারেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।