বিনোদন ডেস্ক::
বছরঘুরে আবারও আয়োজিত হতে যাচ্ছে ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব’। সান ফাউন্ডেশনের আয়োজনে গত তিন বছর ধরে আয়োজিত হয়ে আসছে লোকসংগীতের এ আন্তর্জাতিক বড় আসর।

দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় লোকসংগীতের উৎসব ‘আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-২০১৮’। বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে আগামী ১৫ থেকে ১৭ নভেম্বর, সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত দর্শকরা উপভোগ করবেন বাংলাদেশসহ বিশ্বের সেরা লোকসংগীত শিল্পীদের পরিবেশনায় শেকড়সন্ধানী গানগুলো।

এ উপলক্ষে ৫ নভেম্বর ‘দ্য ওয়েস্টিন ঢাকা’ হোটেলে সকাল ১১টা ৩০ মিনিটে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সান ফাউন্ডেশন ও সান কমিউনিকেশনস লিমিটেড-এর চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী, বেঙ্গল ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান আবুল খায়ের, ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও সৈয়দ মাহবুবুর রহমান, গ্রামীণ ফোনের চিফ বিজনেস অফিসার মাহমুদ হোসেন এবং মাননীয় সংসদ সদস্য ও লোক সংগীতশিল্পী মমতাজ বেগম।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বাংলাদেশসহ বিশ্বের ৭টি দেশ থেকে ১৭৪জন শিল্পী জড়ো হচ্ছেন একই মঞ্চে। এবারের আসরে উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন বাংলাদেশের মমতাজ বেগম, বাউল আব্দুল হাই দেওয়ান, বাউল কবির শাহ, অর্ণব, নকশীকাঁথা, স্বরব্যাঞ্জো ও ভাবনানৃত্য দল।

ভারত থেকে ওয়াদালি ব্রাদার্স, রাঘুদিক্ষিত, সাত্যকি ব্যানার্জি, পাকিস্তান থেকে শাফকাত আমানাত আলী, বাহরাইন থেকে মাজায, যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্র্যামিবিজয়ী লস টেক্সমেনিয়াক্স, পোল্যান্ড থেকে দিকান্দা এবং স্পেন থেকে লাসমিগাস সংগীত পরিবেশন করবেন।

প্রতিবারের মত এবারও দর্শকরা বিনামূল্যে শুধুমাত্র অনলাইন রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সরাসরি উপভোগ করতে পারবেন। অনুষ্ঠানটির টেলিভিশন সম্প্রচারের দায়িত্বে থাকবে মাছরাঙা টেলিভিশন। এছাড়াও গ্রামীণ ফোনের অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং সার্ভিস- বায়োস্কোপ লাইভে থাকবে অনুষ্ঠানটি লাইভ দেখার সুযোগ।

দর্শকরা বিনামূল্যে অনলাইন নিবন্ধনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করতে পারবেন। নিবন্ধন শুরু হবে ৬ নভেম্বর থেকে। প্রতিদিন বিকাল ৩টা থেকে রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে, চলবে ৫দিন পর্যন্ত।