বিনোদন ডেস্ক:: বলিউড তারকা সালমান খানের ব্যবসায়ী পরিচয় নতুন নয়। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি নিজস্ব প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের মালিক। ‘বিয়িং হিউম্যান’ নামে আছে পোশাক, গয়না ও সাইকেলের ব্র্যান্ড। সম্প্রতি তিনি ছবি পরিবেশনার কাজে হাত দিয়েছেন। তবে এটুকু করেই ক্ষান্ত দিচ্ছেন না। তিনি এবার সিনেমা হল তৈরির পরিকল্পনা করেছেন।

সালমান তাঁর আসন্ন ছবি ‘রেস থ্রি’র শুধু প্রযোজকই নন, এই ছবির পরিবেশকও তিনি। এ ছাড়া ভগ্নিপতি আয়ুশ শর্মাকে নিয়ে নির্মিত ‘লাভ রাত্রি’ ছবির পরিবেশনাও করছেন। চলচ্চিত্রে শুধু এইটুকু অবদান রেখেই যেন মন ভরছে না সালমানের। এ জন্য এবার আস্ত এক সিনেমা হল খোলার পরিকল্পনা করেছেন। তাঁর এই পরিকল্পনা অবশ্য নতুন না, প্রায় দুই বছর ধরেই ‘সালমান টকিজ’ নামে একটি থিয়েটার চেইন খোলার কথা ভাবছেন এই তারকা।

শুধু ব্যবসায়িক নয়, সিনেমা হল খোলার পেছনে সালমান খানের কিছু ভালো উদ্দেশ্যও আছে। তাঁর থিয়েটার চেইনের প্রথম হলটি তিনি চালু করতে চান মুম্বাইয়ের অপেক্ষাকৃত কম অভিজাত কোনো এলাকায়। কারণ, ভারতের অধিকাংশ ভালো সিনেমা হলগুলো সব অভিজাত এলাকায়। আর টিকিটের দামও বেশ চড়া। তাঁদের কোনো ভালো সিনেমা হলে ছবি দেখতে হলে ৪০০ থেকে ৫০০ রুপি গুনতে হয়। তবে সালমানের সিনেমা হলে তিনি দর্শকদের আয়কর ছাড়াই সিনেমা দেখার সুযোগ দেবেন।

সালমান মনে করেন, সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সিনেমা হলের টিকিট দাম ২০০ থেকে ২৫০ রুপিতে নামিয়ে আনা উচিত। আর বাকি দিন ১২০ থেকে ১৫০ রুপির মধ্যে। এতে করে আরও বেশি মানুষ হলমুখী হবে বলে তাঁর বিশ্বাস।

তরুণ প্রজন্মের অনেক তরুণ-তরুণীকেই বলিউডে আনার রেকর্ড আছে সালমানের। শুধু তরুণ কেন? যে কেউ সালমানের কাছে কোনো সাহায্য চাইলে তিনি তাঁকে খালি হাতে ফিরিয়ে দেন না। হিন্দি চলচ্চিত্রকে আরও বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে দিতেই নাকি তিনি এবার সিনেমা হল চালু করার চিন্তা করেছেন। সেখানে সুবিধাবঞ্চিত ছাত্র আর শিশুরা বিনা মূল্যে ছবি দেখতে পারবে।

এরপর ধীরে ধীরে ভারতের ছোট শহরগুলোতেও সালমান টকিজের শাখা উদ্বোধন করবেন তিনি। কিন্তু এত কিছু পরিকল্পনা করেও সালমান খান এই ব্যবসা শুরু করতে পারছেন না কিছু কারিগরি সহযোগিতার অভাবে। সেসব জোগাড় হলেই পর্দা উঠবে সালমান টকিজের। এদিকে এবার ঈদে মুক্তি পাচ্ছে সালমান খানের ছবি ‘রেস থ্রি’। এই ছবিতে আরও আছেন অনিল কাপুর, জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ, সাকিব সেলিম, ববি দেওল ও ডেইজি শাহ। বলিউড হাঙ্গামা