ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারার সভাপতি অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি. চৌধুরী) বলেছেন, ‘পুরো জাতির যে একটা নৈতিক মূল্যবোধ আছে তা কত নিচে নামিয়েছেন। সরকারের প্রতিটি মন্ত্রণালয়ে চ্যালেঞ্জ করছি, একটা মন্ত্রণালয় দেখান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেখানে ঘুষ ছাড়া চলে, দুর্নীতি ছাড়া চলে।’

আজ শনিবার বিকেলে মহানগর নাট্যমঞ্চে আয়োজিত ড. কামাল হোসেনের ডাকা নাগরিক সমাবেশে বি. চৌধুরী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সেনাবাহিনী শান্তি মিশনে বিভিন্ন দেশে কাজ করছে। দেশের শান্তির জন্য কেন তারা কাজ করবে না? সেনাবাহিনীকে নির্বাচনের এক মাস আগেই নামাতে হবে।’

বি. চৌধুরী বলেন, ‘সরকারের কাছে প্রশ্ন, কেন স্বাধীন দেশে দিনে-রাতে মা-বাবারা ঘুমাতে পারে না? মা-বাবারা কেন ভাবেন, আমার ছেলে-মেয়েটি স্কুল-কলেজ থেকে নিরাপদে ঘরে ফিরতে পারবে কি পারবে না? পুলিশ-র‌্যাবের নির্যাতন কেন? তারা তো আমাদের সন্তান। এসবের জবাব দিতে হবে।’

বিকল্পধারার সভাপতি বলেন, ‘মেধাবী ছাত্ররা তাদের দাবি জানাতে রাস্তায় নেমেছে। কেন তাদের হাতুড়ি দিয়ে পেটালেন? চাপাতি দিয়ে কোপালেন? এসব প্রশ্নের জবাব দিতে হবে। সরকারের একটা মন্ত্রণালয় দেখান, যে মন্ত্রণালয়টি ঘুষ ছাড়া চলে। প্রধানমন্ত্রী, আপনাকে কোটি টাকা চুরি-লুটপাটের জবাব দিতে হবে।’

সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘কেন স্বাধীন দেশে সমাবেশে পুলিশের অনুমতি নিতে হবে? কেন পুলিশ-র‌্যাবকে কলঙ্কিত করেছেন। আর আপনাদের তোয়াক্কা করব না। স্বৈরাচার এরশাদ, ইয়াহিয়াকেও তোয়াক্কা করিনি।’

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার প্রকল্প অনুমোদন দেওয়ার সমালোচনা করে বি চৌধুরী বলেন, ‘সূক্ষ্ণ কারচুপির জন্য নির্বাচনের আগে এজেন্টদের গ্রেফতার করেছেন। কিন্তু আমরা স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই, ভোট দিতে চাই। জনগণের টাকা চুরি করেছেন। এখন আবার সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা দিয়ে ইভিএম কিনছেন। দেশের মানুষ এসব মানবে না।’

কামালের সভাপতিত্বে ও নাগরিক ঐক্যের সদস্য সচিব মোস্তফা আমিনের পরিচালনায় সমাবেশের মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন— গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা বারিস্টার মইনুল হোসেন, বিএনপি নেতাদের মধ্যে রয়েছেন স্থায়ী কমিটি সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, আবদুল মঈন খান, বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব মাওলানা নুর হোসাইন কাসেমী, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মো. মনসুর ও জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।