নিজস্ব প্রতিবেদক:: সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘সামনে ফাইনাল খেলা, আমরা তৈরি, আমাদের টিম তৈরি। আমাদের নেত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জেল থেকে নেতৃত্ব দিবেন যেভাবে এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

সোমবার (১৫ অক্টোবর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী স্বাধীনতা প্রজন্ম দলের উদ্যোগে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফরমায়েশি রায়ের প্রতিবাদে এক প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

দেশে কোনো রকম নির্বাচনের পরিবেশ নেই উল্লেখ করে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, বিএনপি নির্বাচন করতে চায়। নির্বাচনের পরিবেশ ফিরে আসলেই আমরা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব। সরকারের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, সময় থাকতে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন এবং তাঁর সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। তাঁর যদি কিছু হয় তাহলে এর দায় এই সরকার এবং শেখ হাসিনাকে বহন করতে হবে।

‘বিএনপির নিবন্ধন থাকা উচিত নয়’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যর কড়া সমালোচনা করে তিনি বলেন, নির্বোধ আর কাকে বলবেন? বুদ্ধি জ্ঞান সব হারা হয়ে গেছেন তিনি। বিএনপি একমাত্র দল যে দল বার বার ক্ষমতায় এসেছে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে, যে দল কখনোই সামরিক অভ্যুত্থানকে সমর্থন করেন না। আমরা আওয়ামী লীগের কাছে কোনো অনুদান চাচ্ছি না, আমরা একটি ভালো নির্বাচন চাচ্ছি। ভালো নির্বাচন করার দায় হচ্ছে সরকারের, বিরোধী দলের নয়।

দুদু বলেন, যারা গণতন্ত্রের দাবি করে তারা গণতন্ত্রের ছিটেফোঁটাও রাখে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার আইন করেছে বিএনপি আর বাতিল করেছে আওয়ামী লীগ এটাই বাস্তবতা।

এ সময় আওয়ামী লীগের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা যদি চান লগি-বৈঠার আন্দোলন আমরা করব। পুলিশ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ছাড়াতো আপনাদের গতি নাই। বিএনপিতো গত ১০ বছরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বাইরে রয়েছে। পুলিশকে আপনারা সর্বনিম্নে নামিয়ে এনেছেন। পুলিশের এখন কোনো মর্যাদা আছে বলে মানুষ মনে করে না। এই কান্ড ঘটিয়েছেন আপনারা, র‌্যাবকে জনবিচ্ছিন্নতা করে ফেলেছেন। বাংলাদেশের কেউ এখন মনে করে না দেশে ভালো সরকার চলছে।

ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, জাতীয় ঐক্য গঠনের পর প্রধানমন্ত্রী যে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন তাতে মনে হয়েছে তিনি আর বেশিদিন ক্ষমতায় নাই। তাকে বিদায় নিতে হচ্ছে। আমরা তাদের বিদায় করতে চাই না তাদেরকে নির্বাচনের মাধ্যমে পরাজিত করতে চাই।

জাতীয়তাবাদী স্বাধীনতা প্রজন্ম দলের সভাপতি মো. বশির আহমেদ শিকদার সভাপতিত্বে ও দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-তথ্য বিষায়ক সম্পাদক ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী, জিয়া শিশু-কিশোর সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন চৌধুরী, জিনাফের সভাপতি লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, বন্ধু দলের সভাপতি শরীফ মোস্তফাজামান লিটু, সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মাহাবুবুল ইসলাম রনি, সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক পারভেজ, সিনিয়র সহ সভাপতি মনিরুজ্জামান মনির মৃধা, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম প্রমুখ।