ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী চূড়ান্ত করতে শনিবার রাতে বৈঠকে বসছে বিএনপির স্থায়ী কমিটি। স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্য জানিয়েছেন, প্রার্থীকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া না হলেও রাতেই সবকিছু চূড়ান্ত করে রাখা হবে। তারা জানান, রাতের বৈঠকে দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কাছে নিজেদের মতামত তুলে ধরবেন তারা। কিন্তু, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন খালেদা জিয়া।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘বিএনপির মনোনয়ন বোর্ড বলতে স্থায়ী কমিটিই। এখানেই প্রার্থিতা বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।’

এবার বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে গতবারের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, সাবেক এমপি মেজর (অব.) কামরুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক শাকিল ওয়াহেদ, বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপনের নাম আলোচনায় রয়েছে।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ভোট হয়। আওয়ামী লীগের সমর্থনে ওই নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হন সদ্য প্রয়াত আনিসুল হক। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতবছরের ৩০ নভেম্বর তার মৃত্যুতে স্থানীয় সরকার বিভাগ ১ ডিসেম্বর থেকে ওই পদটি শূন্য ঘোষণা করে।

এরপর গত ৯ জানুয়ারি ডিএনসিসি’র মেয়র পদে উপ-নির্বাচন, সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর ও ৬টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর এবং ডিএসসিসি’র সম্প্রসারিত ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর ও ৬টি সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

তফসিল অনুযায়ী, এই নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র কেনা ও জমা দেওয়া যাবে আগামী ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত। আবেদনকারী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২১ ও ২২ জানুয়ারি। তা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৯ জানুয়ারি।

নির্বাচনী আচরণবিধি অনুযায়ী, প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনো প্রচার চালানো যায় না। সে অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারি থেকে প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করতে পারবেন।