লাইফস্টাইল ডেস্ক: রোগীদের মুখের যাবতীয় সমস্যা কিডনী রোগীর যে ওষুধ দেয়া হয় তার মধ্যে সাইক্লোষ্পোরিন এবং সেই সাথে উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ ক্যালসিয়াম চ্যানেল ব্লকার অন্যতম। এই দু’টি ওষুধের ব্যবহারের ফলে কিডনী রোগীদের মাড়ির প্রদাহের তীব্রতা বেড়ে গিয়ে মাড়ি ফুলে যায়। তবে এই মাড়ি ফুলার মাত্রা পাত্র বিশেষে ৬% থেকে ৮৫% পর্যন্ত হতে পারে। বিশেষত:যখন কিডনীর জন্য সাইক্লো-ষ্পোরিন ও উচ্চ রক্তচাপের জন্য ক্যালসিয়াম চ্যানেল ব্লকার একই সাথে দেয়া হয় তখন মাড়ির প্রদাহের মাত্রা দ্বিগুণ হয় ।

মুখের সমস্যাসমূহ:

১. এই সময়ে এনিমিয়া দেখা যায়। যেহেতু কিডনী রোগীদের মাড়ি থেকেও রক্ত পড়তে পারে। যেহেতু কিডনী রোগীরা তাদের কিডনী জনিত সমস্যা ও চিকিত্সা নিয়ে ব্যস্ত থাকে সেই জন্য তাদের মুখের অস্বাস্থ্যকর অবস্থার কারণে মাড়ির রোগ বেশি হয়।

২. হিমোডায়ালাইসিস-এর কারণে তাদের মুখের আদ্রতাও বেড়ে যায়, কারণ এই সময়ে অনেক ধরণের তরল খাবার খাওয়া নিষেধ থাকে। সেই সাথে ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও মুখের শুষ্কতা বেড়ে যায়।

৩. মুখের দুর্গন্ধ ও মুখের স্বাদ নস্ট হওয়া কিডনী রোগীদের মুখে সাধারণত: এমোনিয়ার ন্যায় দুর্গন্ধ বের হয়। হিমোডায়ালাইসিস রোগীদের ক্ষেত্রে মুখের স্বাদ নষ্ট হওয়া ও জিহবা ভারী হয়ে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দেয়।

৪. যে সব দীর্ঘস্থায়ী কিডনী রোগীরা ডায়ালাইসিস করেন তাদের মুখে এক ধরণের ঘা বা ক্ষত লক্ষ করা যায়। তার মধ্যে লাইকেন প্লানাস, হেয়ারী লিউকোপ্লাকিয়া, ওরাল ক্যানডিডি-য়াসিস ইত্যাদি প্রধান।

চিকিৎসা:

১. এই ধরণের মুখের প্রদাহ বা Infection কিডনী রোগীদের আরও রোগাক্রান্ত ও ট্রান্সপ্লান্ট হওয়া কিডনীর জন্য হুমকি স্বরুপ হতে পারে। সুতরাং কিডনী রোগীদের রোগ সনাক্ত হওয়ার সাথে সাথেই তাদের মুখের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিত্সা করা জরুরী। নিয়মিত চিকিত্সার মধ্যে শল্য চিকিত্সা ছাড়াও নিয়মিত দাঁতের ও মাড়ির স্কেলিং করা যাতে ডেন্টাল প্লাক জমা না হতে পারে।

২. প্রয়োজনবোধে ক্যারিজ আক্রান্ত দাঁত গুলো ডেন্টাল ফিলিং বা ভর্তী করা।

৩. একজন কিডনী ট্যান্সপ্লান্ট রোগীর সার্জারীর আগেই তার মুখ ও দাঁতের চিকিত্সা কাজ সম্পন্ন করা জরুরী। কারণ গবেষণণায় দেখা যায় মুখের প্রদাহ একজন কিডনী রোগীর জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

অতএব, কিডনী রোগীদের বিশেষভাবে ট্রান্সপ্লান্ট করা রোগীদের চিকিত্সার পূর্বেই যেমন মুখ ও দাঁত পরীক্ষা করা জরুরী তেমনি নিয়মিত পরীক্ষা নীরিক্ষাও প্রয়োজন এবং সেই অনুযায়ী রুটিন ডেন্টাল স্কেলিং করাও অত্যাবশ্যক।

লেখক : অধ্যাপক ড. অরূপরতন চৌধুরী, মুখ ও দন্ত রোগ বিশেষজ্ঞ
১৫/এ গ্রিন স্কয়ার, গ্রিন রোড, ঢাকা-১২০৫