লাইফস্টাইল ডেস্ক:: পনির স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি না ক্ষতিকর, এমন একটা বিতর্ক অনেক পুরনো। কেউ কেউ বলেন পনির শরীরের ক্ষতি করে। তবে নতুন গবেষণায় জানা গেছে পনির আসলে স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারি। বিষয়টা এখন এক জরিপে আবারও সত্যি প্রমাণিত হলো। জানা গেছে শরীরে কোলেস্টেরলে মাত্রা কমাতে সাহায্য করে পনির।

পনির ও কোলেস্টেরল: বিশেষজ্ঞরা মনে করেন পনিরে থাকা স্যাচুরেটেড ফ্যাট কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দিতে পারে। আমেরিকার ন্যাশনাল ক্যানসার ইন্সটিটিউট জানিয়েছে, কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দেওয়া খাবারের মধ্যে পনির অন্যতম। তবে যদিও তা কোলেস্টেল লেভেল বাড়িয়ে দেয়, ইউএসডিএ ডায়েটরি গাইডলাইন্সের তথ্যমতে, কোলেস্টেলপূর্ণ খাবার ও রক্তে কোলেস্টেরল লেভেল বেড়ে যাওয়ার মধ্যে কোনো যোগসূত্র প্রমাণিত হয়নি।

নতুন গবেষণা তথ্য: সম্প্রতি পনির নিয়ে এক গবেষণায় জানা গেছে, যারা প্রতিদিন ১২০ গ্রামের মতো পনির খান, তাদের ওজন বাড়ে না এবং তাদের শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রাও কমে যায়। গবেষকরা জানতে পেরেছেন ফ্যাট ফ্রি পনির শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়।

পনিরের যতো উপকারিতা:

২০১৬ সালের এক গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিদিন ২ আউন্সের মতো পনির যারা খায়, তাদের হৃদরোগ ১৮ শতাংশ কমে। ঐ পরিমাণ পনির প্রতিদিন খেলে স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমে জানা গেছে আরেক গবেষণায়।

১। আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিকাল নিউট্রিশনের এক গবেষণায় জানা গেছে প্রতিদিন দুই আউন্সের কম পনির খেলে টাইপ টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ৮ শতাংশ কমে। সুইডেনের এক গবেষণায় দেখা গেছে ২ আউন্সের কম পনির যেসব নারীরা খান, তাদের টাইপ টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে।

২। নিয়মিত পনির খেলে আয়ু বাড়ে, ২০১৬ তে ইউরোপিয়ান জার্নাল অফ ক্লিনিকাল নিউট্রেশনের গবেষণায় তা জানা গেছে। গবেষণায় ৯৬০ জন ফ্রেঞ্চ পুরুষের উপর ১৫ বছর নজর রাখা হয়।

৩। আরেক গবেষণায় দেখা গেছে ৬০ জন পুরুষ ১২ সপ্তাহ ধরে এক কাপের মতো রিকোটা (নরম, লবণ ছাড়া ইটালিয়ান) পনির খাওয়ার কারণে তাদের মাংসপেশি ও স্বাস্থ্য অনেক মজবুত হয়েছে।

৪। পনির ওজন কমায়, শরীর স্লিম রাখে।

৫। পনিরে প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে বলে তা হাড় ও দাঁতের জন্য খুব উপকারি।

৬। ক্যানসার প্রতিরোধ করে পনির।

তথ্যসূত্র: টাইমস অফ ইন্ডিয়া, ইটিং ওয়েল, জি কিউ ডট কম।