বিনোদন প্রতিবেদক::

শিল্পীদের নেতা নির্ধারনের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইলিয়াস কাঞ্চন। আর সমিতির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদকেরও দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

ইলিয়াস কাঞ্চন বর্তমানে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন সংগঠনের কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যস্ত রয়েছে। এই আন্দোলনটির প্রতিষ্ঠাতা তিনি। কমিশনে আরও দুইজন রয়েছেন। তারা হলেন-পীরজাদা হারুন ও বিএইচ নিশান।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক মেয়াদে (২০১৯-২০২০) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৮ অক্টোবর।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন শিল্পী সমিতির বর্তমান মেয়াদের সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, শিল্পী সমিতির নির্বাচনে আমাকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার করা হয়েছে।

নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে প্রচুর ব্যস্ততা রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার হওয়ায় আমার কাজের চাপ বেড়ে গেল। কারণ অক্টোবরজুড়ে নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে প্রচুর ব্যস্ততা রয়েছে।

তবে আশা করি সবার আস্থা নিয়ে দায়িত্বটি পালন করতে পারবো।

এদিকে ৪ অক্টোবর বিগত দুই বছরের সমিতির কাজের হিসাব-নিকাশের ওপর প্রতিবেদন পেশ করা হবে।। ওই দিন সমিতির ২১টি পদের নির্বাচনী তফসিলও ঘোষণা করা হবে।

এবারের চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনেও মিশা সওদাগরকে সভাপতি করে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হবেন জায়েদ খান।

অন্যদিকে চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে সভাপতি করে তৈরি হচ্ছে আরেক প্যানেল। মৌসুমীর সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে লড়বেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক।