রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি::

রূপগঞ্জে নিখোঁজের ২১ ঘন্টা পর মুক্তিপণের ১০ লাখ টাকা না পেয়ে জুঁই আক্তার নামে ৩ বছরের এই শিশু কন্যাকে হত্যা করা হয়েছে ।

শুক্রবার ভোর ৬ টার দিকে অপহৃত শিশুর মুখে ও হাতে কসটেপ মোড়ানো বস্তাবন্দি অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করেছে ভুলতা ফাঁড়ি পুলিশ।

জুঁই আক্তার উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের টেকপাড়া গ্রামের কাপড় ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।

নিহত শিশুর পিতা আনোয়ার হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকাল ৯টায় নিজ বাড়ির উঠানে খেলতে থাকে তার মেয়ে জুঁই আক্তার। এসময় অপহরনকারীরা শিশুটিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

দুপুর ২টার দিকে অপহরণকারীরা জুঁইয়ের মুক্তিপণের জন্য তার কাছে ১০ লাখ টাকা দাবি করে। এর কিছুক্ষন পরে ৩ লাখ টাকা চুড়ান্ত রফাদফা হয়। শুক্রবার ১২ টায় মুক্তিপনের ৩ লাখ টাকা গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর রেল ষ্টেশনে পরিশোধের কথা হয়। অপহরনকারীদের এ ঘটনা পুলিশকে জানালে অপহরণকারীরা মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের সংবাদ পেয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

পরে জুঁইকে হত্যা করে রাতের কোনো এক সময় আনোয়ার হোসেনের বাড়ির পাশেই বালুর ডিবির উপর কসটেপ মোড়ানো বস্তাবন্দি অবস্থায় ফেলে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

এদিকে জুঁইয়ের হত্যায় পরিবার ও আশপাশের লোকজনের কান্নায় বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। এ ঘটনায় আনোয়ার হোসেনের বাড়ির ভাড়াটিয়া সুলতান মিয়া, জিন্না মাদবর, জহিরুল, রিকশা চালক একরামুল ও তার স্ত্রী গার্মেন্টস কর্মী সখিনা বেগমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য আটক করা হয়েছে।

ভুলতা পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ রফিকুল হক জানান, হত্যাকারীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।