নরসিংদী প্রতিনিধি:: নরসিংদীর দ্বিতীয় ‘জঙ্গি আস্তানা’ নিলুফা ভিলায় এখনও চূড়ান্ত অভিযান শুরু করেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

আজ বুধবার সকাল থেকে এ আস্তানায় চূড়ান্ত অভিযানের প্রস্তুতি নেওয়া হয়। এর অংশ হিসেবে আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।

তবে চূড়ান্ত অভিযান শুরুর ক্ষেত্রে বিলম্ব করার কারণ জানিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আমরা গতকাল রাত এবং বুধবার সকালেও ভবনে অবস্থানরত জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করার অনুরোধ জানিয়েছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের কোনো সাড়া পাচ্ছি না। আমরা চেষ্টা করছি, সোয়াটের অপারেশন ছাড়াই তাদেরকে বের করে আনতে। আর সেটা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভেতরে থাকা জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করাতে সব ধরনের প্রচেষ্টা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নরসিংদীতে দুই জঙ্গি আস্তানার সন্ধান লাভের পর সোমবার রাত থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তা ঘিরে রেখেছে। তবে গতকাল মঙ্গলবার একটিতে অভিযান চালানো হয়। এতে দুই জঙ্গি নিহত হয়।

আজ বুধবার অন্য আস্তানাটিতে অভিযান চালানোর কথা। এ জন্য সকাল থেকে মাধবদী পৌর এলাকার ছোট গদাইরচর (গাংপার) মহল্লার সাত তলা বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি নিয়েছে পুলিশ। এরই অংশ হিসেবে বুধবার সকাল থেকে আস্তানার আশপাশের পুরো এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে মাইকিং করেছে প্রশাসন।

মাধবদী পৌরসভা ভবন থেকে ২০০ গজ দূরে অবস্থিত আফজাল হোসেনের মালিকানাধীন নিলুফা ভিলা নামক এই সাত তলা বাড়িটি গত সোমবার রাত সাড়ে ৯টা থেকে ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১৪৪ ধারা জারির পর থেকে পুরো এলাকায় সতর্ক অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। মহল্লার সবাই যেন কেউ বাড়ির বাইরে বের না হয় এবং বাড়ির দরজা-জানালা বন্ধ করে দেয়া হয়। সাংবাদিকসহ কেউ যেন কোনো বাড়ির ছাদে না উঠতে না পারে সেজন্য মাইকিং করা হয়েছে।

পাশাপাশি এই এলাকার দোকান-পাটসহ সকল শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সদর উপজেলার মেহেরপাড়া ইউনিয়নের ভগীরথপুর এলাকার একটি পাঁচতলা বাড়িতে সকাল ১০টা থেকে ছয় ঘণ্টার ‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’বা জটিল গেঁরো নামের অভিযান চালানো হয়। ওই অভিযান শেষে একটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ এক নারী ও এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।