নরসিংদী প্রতিনিধি:: নরসিংদীর দ্বিতীয় ‘জঙ্গি আস্তানা’ নিলুফা ভিলা থেকে খাদিজা ও মৌ নামের দুই নারী জঙ্গি আত্মসমর্পণ করেছে।

বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে আত্মসমর্পণ করে। আত্মসমর্পণকারী দুই নারী জঙ্গিসহ নিহত দুই জঙ্গির মধ্যে ৩ জন মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে জানান পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

তিনি আরও জানান, নিহত দুই জঙ্গির সঙ্গে আত্মসমর্পণকারী দুই নারীর যোগাযোগ ছিল। এর আগে মঙ্গলবার রাত থেকে তাদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়েছে আসছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বুধবার সকাল থেকেই নরসিংদীর দ্বিতীয় এ জঙ্গি আস্তানায় চূড়ান্ত অভিযান শুরুর প্রস্তুতি নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পাশাপাশি তাদের আত্মসমর্পণের আহ্বানও জানানো হয়। চূড়ান্ত অভিযানের অংশ হিসেবে আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারাও জারি করে প্রশাসন। তবে চূড়ান্ত অভিযান শুরুর ক্ষেত্রে বিলম্ব করার কারণ জানিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, আমরা গতকাল রাত এবং বুধবার সকালেও ভবনে অবস্থানরত জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করার অনুরোধ জানিয়েছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাদের কোনো সাড়া পাচ্ছি না। আমরা চেষ্টা করছি, সোয়াটের অপারেশন ছাড়াই তাদেরকে বের করে আনতে। আর সেটা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) নরসিংদী সদর উপজেলার মেহেরপাড়া ইউনিয়নের শেখেরচর ভগিরথপুর এলাকার একটি পাঁচতলা বাড়ির জঙ্গি আস্তানায় অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’শেষ করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ওই অভিযানে এক নারী ও এক পুরুষ জঙ্গির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ বাড়িটিও সোমবার থেকে ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। নরসিংদীর পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, জঙ্গি আস্তানায় অভিযান পরিচালনা করছে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটিটিসি)। আর এর নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে নরসিংদী জেলা পুলিশ। জঙ্গি আস্তানা ও এর চারপাশের নিরাপত্তায় ড্রোন ব্যবহার করছে জেলা পুলিশ।