রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী মহানগরীতে আওয়ামী লীগের একটি ওয়ার্ড কার্যালয় থেকে ১৫ জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়া সেখান থেকে এক শিবির কর্মীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে নগরীর তিন নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) এ অভিযান চালায়। নগর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক রাশিদুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গ্রেপ্তার ১৫ জুয়াড়ির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। আর শিবির কর্মীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে তার বিরুদ্ধে থাকা আগের নাশকতার মামলায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের সবাইকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারেও পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ পরিদর্শক রাশিদুল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন, নাশকতা মামলার এক পলাতক আসামি শিবির নেতা নগরীর মহিলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন একটি টিনের ঘরের জুয়ার আসরে অবস্থান করছেন। এ তথ্যের ভিত্তিতে তারা সেখানে অভিযানে যান।

এ সময় তারা দেখেন, টিনের ঘরটির সামনে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সাইনবোর্ড লাগানো। সেখানে অভিযান চালিয়ে মামুনুর রশীদ নামের ওই শিবিরকর্মী ছাড়াও ১৫ জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করা হয়। জব্দ করা হয় ১ লাখ ৬ হাজার টাকা, টাকা রাখার বাক্স এবং ৫ সেট তাস।

মামলার এজাহারে ঘটনাস্থলের বর্ণনা দেওয়া হয়, ‘মহিলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন জনৈক সেলিমের মোটর গ্যারেজের পূর্বপাশে সরকারি জায়গায় জনৈক বাবুলের নির্মিত টিনের ঘর। ঘরটির বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাতাব আলী বলেন, শুধু বাবুল নয়, আমিসহ আরও কয়েকজন মিলেই ঘরটি তৈরি করেছি। সেটা আমাদের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের অফিস।’

গ্রেপ্তারের করার বিষয়ে জানতে চাইলে মাহাতাব বলেন, ‘এই বিষয়টা আমি জানি না। আমাকে কেউ জানায়নি। খোঁজখবর নিয়ে বলতে পারব।’