সাদের হোসেন বুলু, নবাবগঞ্জ (দোহার)প্রতিনিধি::
বঙ্গমাতা ছিলেন একজন মহিয়সী নারী। তিনি খেলাধুলায় অনুপ্রেরণা যুগাতেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে রাজনীতিতে উৎসাহ যোগাতেন। তাকে স্মরণ করে যে খেলার আয়োজন হয়েছে তা প্রশংসনীয়। এ ধারা অব্যাহত থাকলে তরুন প্রজম্ম মাদক থেকে দূরে সরে খেলাধুলা ও সংস্কৃতিতে মনোযোগী হবে। ভবিষ্যতে এ খেলার আয়োজন করতে হবে। ‘মাদককে না বলি- মাঠে এসে ফুটবল খেলি’ এই শ্লোগানে ১৩ জানুয়ারী শনিবার বিকালে নবাবগঞ্জ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের চুড়ান্ত খেলায় প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম এ কথা বলেন।

বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের চুড়ান্ত খেলায় প্রধান বক্তা হিসেবে সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ঢাকা-১ আসনের সাংসদ, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম বলেন, তিনি নতুন প্রজম্মকে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা সর্ম্পকে জানতে হবে। বঙ্গবন্ধুর বন্দীদশায় নেতাকর্মীদের পাশে থেকে দিক নির্দেশনা দিতেন বঙ্গমাতা।উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউএনও তোফাজ্জল হোসেন। ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে ম্যাচ ভিত্তিক খেলায় ফাইনালে অংশ নেয় যন্ত্রাইল বনাম কৈলাইল ইউনিয়ন। এতে ১-০ গোলে কৈলাইলকে পরাজিত করে যন্ত্রাইল বিজয়ী হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারী ব্যবসায়ী খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট আব্দুল মান্নান খান, ঢাকা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান, আ’লীগ জাতীয় কমিটির সদস্য আব্দুল বাতেন মিয়া, আলমগীর হোসেন, নির্মল রঞ্জন গুহ, মমতাজ উদ্দিন, কাজী সওকাত শাহীন, পনিরুজ্জামান তরুন, ওসি সিরাজুল ইসলাম, মোস্তফা কামাল, ঢাকা জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, আলী আহসান খোকন শিকদার, নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু, জালাল উদ্দিন, প্রেসক্লাব সভাপতি আলহাজ্ব ইব্রাহীম খলিল, সাংবাদিক লাবন্য ভূইয়া,।