নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জে’র বন্দরে দুই সন্তানের জনণী গৃহবধূ কহিনূর বেগম’কে উচ্চ বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে সৌদি আরবে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে ফিরোজা বেগমর বিরুদ্ধে। গতকাল বন্দর থানায় ওই গৃহবধূর স্বামী কাদির মিয়া বাদি হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

তথ্যসূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার ছালেনগর এলাকার গরীব রিক্সাচালক কাদির মিয়া, স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছিল। তার এ সরলতার সুযোগ নিয়ে একই উপজেলার ঝাউতলা এলাকার ইকবাল মিয়ার স্ত্রী ফিরোজা বেগম কাদির মিয়ার স্ত্রী কহিনূর বেগমকে প্রলোভন দেখায়। তার প্রলোভনে পরে যায় কহিনূর সৌদি আরবে যেতে রাজি হয়। গত ২৬ অক্টোবর ২০১৬ ইং তারিখে বাড়ি থেকে কহিনূরকে নিয়ে যায় এবং সৌদি আরবে পাঠিয়ে দেয় প্রতারক ফিরোজা বেগম। সৌদি আরব যাওয়ার পর থেকে ২ বছরে কহিনূর তার স্বামী ও সন্তানদের সাথে কোন রকম যোগাযোগ বা মোবাইল ফোনে কথা বলতে পারেনি। স্ত্রীর খোজ খবর না পেয়ে স্বামী কাদির মিয়া ফিরোজার সাথে কথা বলতে গেলে তাকে কোন রকম পাত্তা দিচ্ছে না ফিরোজা। বরংচ উল্টো টাকা দাবী করে আসছে।

এ বিষয়ে কাদির মিয়া জানায়, লোভ দেখিয়ে ফিরোজা বেগম আমার স্ত্রীকে বিক্রি করে দিয়েছে। তার সাথে গত ২ বছরে কোন কথা বলতে পারিনি আমরা। ফিরোজা বেগমকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আমার স্ত্রী কোথায় বা তাকে ফিরিয়ে আনতে বাধ্য হবে সে।