মো. আবদুল্লাহ আল মামুন, নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:
নারায়ণগঞ্জ’র ফতুল্লায় পুলিশের সঙ্গে সন্ত্রাসী লিখন বাহিনীর বন্দুকযুদ্ধে পুলিশসহ ৪জন আহত হয়েছে। এসময় অস্ত্র, গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) ভোর পৌনে ৪টায় সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন পাগলার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।
পুলিশ জানায়, ফতুল্লা থানাধীন নিশ্চিন্তপুর কবিরাজ বাড়ির সামনে মাদক বিক্রেতারা মাদকের একটি চালান ক্রয়-বিক্রয় করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৪টায় এসআই তারেক আজিজসহ সঙ্গীয় ফোর্সগন অভিযান চালায়। এসময় সন্ত্রাসারী পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। দু’পক্ষের গোলাগুলি এক পর্যায়ে অজ্ঞাতনামা মাদক সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। গোলাগুলির সময় এসআই সাফিউলসহ আরো ৩জন আহত হয়। একই সময় ঘটনাস্থলে তল্লাশীকালে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অজ্ঞাতনামা মাদক বিক্রেতাকে পরে থাকতে দেখা যায় এবং তার পাশ থেকে ০১ টি রিভালবার, ০২ রাউন্ড গুলি ও ৪২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। পরে স্থানীয়দের তথ্যমতে জানা যায় আহত মাদক বিক্রেতার নাম লিখন (২৫)। লিখন সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন নিশ্চিন্তপুর এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে। আহত পুলিশ সদস্যদেরকে খানপুর ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। আহত মাদক বিক্রেতা লিখনকে প্রথমে খানপুর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরন করেন।

ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মঞ্জুর কাদের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার ভোরে মাদক বিক্রির সময় গোপন সংবাদ পেয়ে পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা পুলিশের উপর গুলি চালালে অফিসারসহ ৩জন আহত হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় লিখন নামের একজন মাদক বিক্রেতাকে আহতবস্থায় আটক করা হয়। এসময় তার পাশ থেকে ০১ টি রিভালবার, ০২ রাউন্ড গুলি ও ৪২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। লিখনের বিরুদ্ধে ফতুল্লাসহ বিভিন্ন থানায় মাদকসহ অস্ত্র আইনে মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।