জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি॥ লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার বুড়িরবাজার নামক স্থানে ঈদগাহ মাঠ জোরপূর্বক দখল করে টিনের চালা নির্মান করেন একটি স্বার্থানেষী মহল। আর এ ঘটনায় ঈদগাহ মাঠের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বীরমুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়া ইউএনও বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যার অনুলিপি প্রেসক্লাবসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তর প্রেরণ করা হয়েছে। স্বার্থানেষী মহলটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করায় ক্ষিপ্ত হয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়ার উপর হামলা করে জখম করা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ উঠেছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়া আদিতমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বর্তমানে ওই মুক্তিযোদ্ধা ও ঈদগাহ মাঠের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আদিতমারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, গত ৯ সেপ্টেম্বর আদিতমারী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে একটি স্বার্থানেষী মহল জোরপূর্বক একটি টিনের চালাঘর নির্মান করেন। এ ঘটনায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দায়েরর পর থেকে উপজেলা সদরের ভাদাই ইউনিয়নের মালেকুল ইসলাম কেচুর ছেলে মামুন (২৫) তাকে বিভিন্ন রকম ভয় ভীতি ও হুমকি দিয়ে আসছেন বলে তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন।

এদিকে, বুধবার রাতে মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়া এশার নামাজ শেষে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার পথে ভাদাই জিএস মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় গেটের সামনে পৌঁছালে তাকে লক্ষ করে ইটের টুকরা দিয়ে মাথায় ঢিল ছোড়া হয়। ঢিলটি মাথায় না লেগে কপালের উপর লেগে রক্তাক্ত জখম হয়। এ ঘটনার জন্য তিনি মামুনকেই দায়ী করছেন। পরে স্থানীয়রা রক্তাক্ত অবস্থায় আজিম মিয়াকে উদ্ধার করে রাতেই আদিতমারী হাসপাতালে ভর্তি করান। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ বিষয়ে মামুন তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ তাদের জায়গায় ৮ জন দোকানদারকে জায়গা দিয়েছেন দোকান ঘর তোলার জন্য অথচ ওই মুক্তিযোদ্ধা স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ না দিয়ে আমার বাবার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন। তিনি দাবী করেন, মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়া একের পর এক মিথ্যা অভিযোগ দিয়েই চলেছেন। তিনি ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত দাবী করছেন।

আদিতমারী থানার ওসি (তদন্ত) ওয়াহেদুজ্জামান মুক্তিযোদ্ধা আজিম মিয়ার লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।