জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব জাতির স্থপতি এবং জাতির নেতা, আ’লীগ তাকে দলীয় নেতা বানিয়েছে, তা হতে পারে না। এদেশে সরকারের পক্ষে কিংবা বিপক্ষে যারাই থাকবে তাদেরকে হতে হবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ শক্তি। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ঐক্য ন্যাপের কেন্দ্রীয় সভাপতি বর্ষিয়ান নেতা পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেছেন, ৩০ লাখ মানুষের আত্মবলিদান, ৪ লাখ মা-বোনে সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধীরা কোন ভাবেই এদেশে থাকতে পারে না। তিনি আরও বলেন, যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে লুটপাটে ব্যস্ত থাকে, ধর্মীয় সংখ্যা লঘুদের সম্পদ দখল করে, তাদের বাড়ি-ঘরে আগুন দেয়, হত্যা করে, ধর্ষন করে তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে দাড়াতে হবে।
১৩ জানুয়ারী শনিবার বিকেলে লালমনিরহাট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ঐক্য ন্যাপের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।
শ্রী-গৌর গোপাল সাহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মন্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মুনায়েম নেহেরু, এ্যাড. এনামুল হক চাঁদ, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারন সম্পাদক হারুনুর রশিদ, লালমনিরহাট জেলা জাসদের সভাপতি খোরশেদ আলম, জেলা কমিউনিষ্ট পার্টির সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বীর মুুিক্তযোদ্ধা মোজাম্মেল হোসেন, সিনিয়র সাংবাদিক ও প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি গোকুল রায় প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
বর্র্ষীয়ান এ নেতা আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মজিব জাতির নেতা এবং জাতির স্থপতি, কিন্তু আওয়ামী লীগ আজ তাকে দলীয় নেতা বানিয়েছেন, তা হতে পারে না। তিনি বলেন, আদিবাসীদের সাথে শান্তিচুক্তির ২০ বছর পার হলেও তারা আজো অধিকার ফিরে পায়নি।
সম্মেলনে অন্যান্য বক্তরা বলেন, মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই এর নামে যারা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দিয়ে অমুক্তিযোদ্ধা বানিয়েছে, এমনকি বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা এবং সংগঠকদের অপমান করেছে। আর ভুয়া ও রাজাকারের পরিবারের সদস্যকে মুক্তিযোদ্ধা বানানোর যারা সুপারিশ করেছে তাদেরকে সাবধান হয়ে যেতে পরামর্শ দেন বক্তারা।
সম্মেলনে গৌর গোপাল সাহাকে সভাপতি করে ২৩ সদস্য বিশিষ্ট ঐক্য ন্যাপের জেলা কমিটি ঘোষনা করা হয়।