জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিরধি:
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মোহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আওয়ামীলীগের ছেলেরা রাস্তায় মেয়েদের আটকিয়ে ধর্ষন করে। থানায় মামলা নেয় না পুলিশ। তাই বাধ্য হয়ে বাবা-মায়েরা ১৪ বছরের মেয়েকে বাল্যবিয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন। এখন বাল্য বিবাহে এক নম্বরে আছি আমরা। ব্যাংকে টাকা নেই, সরকার সব লুটপাট করেছে। আর না দেশের মানুষ আজ পরিবর্তন চায়, আমরা জেগে উঠেছি।
সোমবার(১৬ এপ্রিল) বিকেলে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কুমড়িরহাট এসসি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে এক বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এরশাদ বলেন, এ অঞ্চলের লোকজনকে মফিজ বলা হয়। আমরা আর মফিজ থাকব না। জাতীয় পার্টির প্রতি দেশবাসীর ভালবাসা প্রমান করে আগামী দিনে জাতীয় পার্টি সরকার গঠন করবে। এ জন্য লালমনিরহাটের ৩টি আসনে যথাক্রমে মেজর খালেদ আক্তার, রোকন উদ্দিন বাবুল ও জিএম কাদেরকে জাপার প্রার্থী ঘোষনা করে আগামী নির্বাচনে লাঙ্গলে ভোট চান এরশাদ।
জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আমরা এমন উপজেলা চাই না। যেখানে উপজেলা চেয়ারম্যানরা বাসায় ঘুমায় আর ইউএনওরা উপজেলা চালায়। আমরা আবার সেই আগের উপজেলা পরিষদ গঠন করব। জাপা জেগে উঠেছে, এ বিশাল জনসমুদ্র আজ সেটাই প্রমান করে। আমার জিবনে এত মানুষের সমাগম কোন জনসভায় দেখিনি। এ জনসমুদ্র দেখতে ও জাপাকে ক্ষমতায় পাঠাতে মহান আল্লাহ আমায় বেঁচে রেখেছেন। আপনাদের ভালবাসা দেখে নিজেকে আজ ৪০ বছরের মানুষ মনে হচ্ছে। এ জনসমুদ্র দেখে কথা বলার ভাষা ভুলে গেছি।
আদিতমারী উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী জিএম কাদের। জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, এলজিইডি প্রতিমন্ত্রী প্রেসিডিয়াম সদস্য মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর (অবঃ) খালেদ আক্তার, চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি, রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, লালমনিরহাট -২ আসনের সম্ভব্য প্রার্থী জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক রোকন উদ্দিন বাবুল, আদিতমারী উপজেলা জাপার সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।
এর আগে এরশাদ নীলফামারীর জলঢাকা হয়ে তিস্তা ব্যারাজ অবসর রেষ্ট হাউজে দুপুরের খাবার শেষে সড়ক পথে বিকেল সাড়ে ৫টায় জনসভা মঞ্চে উপস্থিত হন। জনসভা শেষে সন্ধ্যার পরে রংপুরের উদ্দেশ্যে রহনা দেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মোহম্মদ এরশাদ।