ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর শিক্ষার্থীদের আত্মহত্যার ঘটনায় অভিভাবক ও সমাজকে দায়ী করেছেন শিক্ষকরা। তারা বলেছেন, পরীক্ষায় পাসের মতো ফেলও একটি স্বাভাবিক ঘটনা, এতে শিক্ষার্থীদের শাস্তি কিংবা তিরস্কার না করতে আহ্বান জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

পরীক্ষায় ফেল করা শিক্ষা জীবনের একটি স্বাভাবিক ঘটনা হলেও চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করেছিলো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্র অরিন্দম সৈকত। ২৪ জুলাই রাত ১০টায় দেয়া তার ফেইসবুক স্ট্যাটাস বিবেকের তাড়নায় কাঁদিয়েছে অনেককে।

মন্ত্রণালয়ের সতর্কতার সত্ত্বেও এবারের এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের এক শিক্ষার্থী রসায়নে ফেল করেছে আর বাকী বিষয়গুলোতে পেয়েছে জিপিএ ফাইভ। তাকে নিয়ে আতঙ্কে অভিভাবকরা।

শিক্ষকরা বলছেন, অনেক অভিভাবক পরীক্ষায় ফেল করাকে গ্রহণ করতে না পেরে শিক্ষার্থীদের মানসিক নিপীড়ন করেন। এ কারণে শিক্ষার্থীরা অনেক সময় আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। তাই নিজের সন্তানের প্রতি আরও আন্তরিক হতে অভিভাকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

আর কোন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় ভালো ফলাফল না করলে তার আচরণ পর্যবেক্ষণ করে সে অনুয়ায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অভিভাবকদের অনুরোধ জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।