ই-কন্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বাংলা বিভাগের অধ্যাপক মিল্টন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ করেছেন একই বিভাগের নারী অধ্যাপক হোসনে আরা জলি। সোমবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মীজানুর রহমানের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়ে সহকর্মীর বিচার দাবি করেছেন তিনি। আর এদিকে আনিত অভিযোগকে প্রহসনমূলক বলে অস্বিকার করেছেন মিল্টন বিশ্বাস।

মিল্টন বিশ্বাস বাংলা বিভাগের অধ্যাপকের পাশাপাশি অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তরের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন।

হোসনে আরা জলি বলেন, “শুধু ফেইসবুকেই না, নানা মহলে মিল্টন বিশ্বাস আমার নামে নানা ধরনের আপত্তিকর কথা বলে বেড়াচ্ছেন। এতে করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিভ্রান্ত হচ্ছেন, এমনকি আমি নিজে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হচ্ছি। আইনের আশ্রয় নিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের মানসম্মান নষ্ট হবে বলে আমি বিরত থেকেছি।”

তিনি বলেন, “আমার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের জন্য এই মিল্টন বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আমি একাধিকবার উপাচার্যের কাছে মৌখিক অভিযোগ দিয়েছি, কিন্তু তার কোন সুরাহা হয়নি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক মিল্টন বিশ্বাস বলেন,“হোসনে আরা জলি আমার সামনে একজন শিক্ষকের সাথে সাম্প্রদায়িক আচরণ করেছে। তার এই আচরণের প্রতিবাদ করায় আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে। তার সাথে আমার ঝামেলা সাম্প্রদায়িক ইস্যুতে, অন্য কিছুতে নয়।”

তিনি আরো বলেন, “হোসনে আরা জলি সব সময় আমার বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে থাকেন। ভিসি স্যারের কাছে তার বিরুদ্ধে আমার একাধিক অভিযোগ দেওয়া আছে। উনি যে সকল বিষয়ে আমাকে অভিযুক্ত করেছেন সেগুলোর সাথে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য অধ্যাপক মীজানুর রহমান বলেন, “একটা অভিযোগ আমি পেয়েছি। তবে এটা দেখার সুযোগ পাইনি, দেখে পরবর্তিতে ব্যবস্থা নেবো।” সুত্র-ইত্তেফাক