অনলাইন ডেস্ক::

সুন্দরবন দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। এরপর ধীরে ধীরে এটি দুর্বল হয়ে পড়বে। বর্তমানে বাংলাদেশের মোংলা বন্দর থেকে ২৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে রয়েছে বুলবুল। রাত ৮টা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে যেকোনও সময় এটি তীরে আঘাত হানবে বলবে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

শনিবার (৯ নভেম্বর) বিকাল সোয়া ৫টায় আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওমর ফারুক বলেন, ‘ভারত ও বাংলাদেশের সুন্দরবন সীমানা দিয়ে দুই দেশে প্রবেশ করবে বুলবুল। বর্তমানে এটি মোংলা বন্দর থেকে ২৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে রয়েছে। এর তীরের দিকে এগিয়ে আসার গতিবেগ ঘণ্টায় ১৫ কিলোমিটার এবং বাতাসের গতিবেগ ৮৫ থেকে ১০০ কিলোমিটার। মধ্যরাত নাগাদ এটি বাংলাদেশ সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় আঘাত হানবে। দুই দেশের সুন্দরবন সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করে এটি ধীরে ধীরে দুর্বল হবে।’

বর্তমানে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে বুলবুল আরও উত্তর দিকে অগ্রসর হয়েছে। এর প্রভাবে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরসহ ৯ উপকূলীয় জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখানো হচ্ছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই সতর্কতা জারি থাকবে। আজ শনিবার সন্ধ্যার মধ্যে এটি সুন্দরবনের পাশ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও খুলনা উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

১০ নম্বর সতর্কতার আওতায় থাকা জেলাগুলো হচ্ছে– ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো।

৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকা জেলাগুলো হলো– চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো। কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।