শনিবার, ২২ Jul ২০১৭ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৪ English Version

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

৩৮তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ শুরু

প্রযুক্তি ডেস্ক:: ৩৮তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ-২০১৭ ও তিন দিনব্যাপী বিজ্ঞান মেলা শুরু হচ্ছে আজ। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে প্রধান অতিথি হিসেবে বিজ্ঞান সপ্তাহ ও মেলার উদ্বোধন করবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি থাকবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি ও একই মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনোয়ার হোসেন। সভাপতিত্ব করবেন জাদুঘরের মহাপরিচালক স্বপন কুমার রায়। এবার মেলার প্রতিপাদ্য ‘উন্নত আগামীর জন্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি’। মেলায় দেশের ৬৪টি জেলা থেকে জুনিয়র, সিনিয়র ও বিশেষ গ্রুপে প্রথম স্থান অধিকারী প্রতিযোগী ও গাইডসহ তরুণ এবং অপেশাদার বিজ্ঞানীরা অংশগ্রহণ করবেন। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। মেলার দ্বিতীয় দিন (শুক্রবার) সকাল ১০টায় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে। সমাপনী দিবসে (শনিবার) দুপুর ২টায় প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে ১৮ ঘণ্টা নতুন সিম বিক্রি বন্ধ

প্রযুক্তি ডেস্ক:: ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং সিস্টেম আপডেট করার জন্য বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে পরবর্তী ১৮ ঘণ্টা নতুন সিম বিক্রি বন্ধ থাকবে। সিস্টেম আপডেটের পর আবারো সব অপারেটরের সিম যথারীতি বিক্রি হবে। তিনি আরো বলেন, ১৮ ঘণ্টার মধ্যে যে মুহূর্তে যে অপারেটর আপডেট হয়ে যাবে ১৮ ঘণ্টার আগেই ওই অপারেটরের সিম বিক্রি করার অনুমোদন দেয়া হবে। আজ বুধবার সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং সিস্টেম এর উদ্বোধন করে তিনি এসব তথ্য জানান। তারানা হালিম বলেন, সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং সিস্টেম শুক্রবার থেকে লাইভে (অনলাইন) যাচ্ছে। এ সিস্টেমের উদ্বোধন আজকে ঘোষণা করছি। তিনি বলেন, সিম ও রিম বায়েমেট্রিক ভেরিফিকেশন সফলভাবে মাত্র ৫ মাসের মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। এ প্রক্রিয়াটি আরো নিচ্ছিদ্র করতে ‘সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং সিস্টেম’ এ যাচ্ছি। এ সিস্টেমে যুক্ত হয়েছে দেশের সকল অপারেটর। এর মাধ্যমে দেশের সব অপারেটরদের যুক্ত করে একটি প্যারারাল ডাটাবেজ বিটিআরসির সেন্ট্রালে রাখা হচ্ছে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে বায়েমেট্রিক ভেরিফাইড সিমের ডাটাবেজ প্রত্যেকটি অপারেটর বিটিআরসিতে পাঠিয়েছে। গত ৩০ মে পর্যন্ত ডাটাবেজ সেন্ট্রাল সিস্টেমে লোড করা হয়েছে। ডাটা আপডেট করার জন্য কোথাও কোথাও বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে পরবর্তী ১৮ ঘণ্টা সিম বিক্রিতে কিছুটা বিঘ্ন ঘটতে পারে। ডাটা আপডেট করার পর শুক্রবার বিকেল থেকে সিস্টেমটি অনলাইন হয়ে যাবে। তিনি বলেন, শুক্রবার থেকে কোনো গ্রাহকের জন্য কোনো অপারেটর সিম কিনতে চাইলে সেটি যাবে সেন্ট্রাল মনিটরিং সেস্টেমে। সিস্টেম উক্ত গ্রাহকের ন্যাশনাল আইডির সাথে যাচাই করে দেখবে ওই আইডির বিপরীতে কয়টি সিম আছে। তারপর সিস্টেম থেকে সিমটি রেজিস্ট্রি করা যাবে কিনা সে তথ্য অপারেটেরের কাছে যাবে। অপারেটর তথ্যপ্রাপ্তি সাপেক্ষে সিমটি ভেরিফাই ও রেজিস্ট্রি করবে। গ্রাহকদের কোনো ধরনের হয়রানি ছাড়াও এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবেও বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। উল্লেখ্য, একটি ন্যাশনাল আইডির রিপরীতে সর্বোচ্চ ২০ সিম বিক্রির নিয়ম রয়েছে। ‘সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন মনিটরিং সিস্টেম’ এ মধ্যামে যেসব সুবিধা পাওয়া যাবে: প্রত্যেক এনআইডি এর বিপরীতে সব অপারেটর মিলিয়ে কয়টি সিম আছে তা জানা যাবে। প্রতিটি সিম বিক্রির আগে ক্লিয়ারেন্স দিতে পারা যাবে। প্রতিটি অপারেটরের গ্রাহক সংখ্যা সঠিকভাবে নির্ণয় করা যাবে। কোন মাসে কত কমলো বা বাড়লো তা সহজেই জানা যাবে। কোনো ডাটা নিয়ে সন্দেহ হলে বিটিআরসি তা ভেরিফাই করে নিতে পারবে।

চতুর্থবারের মতো ডব্লিউএসআইএস পুরস্কার পেল বাংলাদেশ

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: তথ্যপ্রযুক্তি খাতে অত্যন্ত মর্যাদা সম্পন্ন পুরস্কার হিসেবে বিবেচিত ‘ওয়ার্ল্ড সামিট অন দ্য ইনফরমেশন সোসাইটি’ (ডব্লিউএসআইএস) পুরস্কার আবারো পেয়েছে বাংলাদেশ। আজ বুধবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই প্রোগ্রাম এর প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার এই তথ্য জানিয়েছেন। এবারের ‘ডব্লিউএসআইএস প্রাইজ চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড-২০১৭’-তে চতুর্থবারের মতো একটি ক্যাটাগরিতে ‘মাল্টিমিডিয়া টকিং বুক’ বিজয়ী এবং ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিমেডিসিন প্রজেক্ট’, ‘সোশ্যাল মিডিয়া ইন পাবলিক সার্ভিস ইনেশিয়েটিভ’ ও ‘ই-নথি’ অন্য তিনটি ক্যাটাগরিতে চূড়ান্তভাবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অ‍‍র্জন করেছে। জাতিসংঘের আইসিটিসংক্রান্ত বিশেষায়িত সংস্থা আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের (আইটিইউ) সদর দপ্তর সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় মঙ্গলবার এক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পক্ষে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই প্রোগ্রাম এর প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার এ সম্মাননা গ্রহণ করেন। পুরস্কার প্রাপ্তির বিষয়ে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা থেকে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় কবির বিন আনোয়ার এ বিজয়ের জন্য উল্লাস প্রকাশ করেন এবং দেশের জনগণের উদ্দেশে এ পুরস্কার উৎসর্গ করেন। তিনি এ প্রকল্পে সর্বাত্মক সমর্থন ও সহযোগিতা দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কে অভিনন্দন জানান। প্রসঙ্গত, গতবছর তৃতীয়বারের মতো ‘ডব্লিউএসআইএস প্রাইজ চ্যাম্পিয়নস অ্যাওয়ার্ড-২০১৬’-তে এটুআই প্রোগ্রামের চারটি উদ্যোগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মর্যাদা অর্জন করে। চ্যাম্পিয়ন হওয়া উদ্যোগগুলো হলো- সেবা পদ্ধতি সহজিকরণ-এসপিএস (ক্যাটাগরি-০৬), পরিবেশ অধিদপ্তরের অনলাইন ছাড়পত্র (ক্যাটাগরি-০৭), শিক্ষক বাতায়ন (ক্যাটাগরি-০৯) এবং কৃষকের জানালা (ক্যাটাগরি-১৩)। ২০১৫ সালে এটুআইয়ের ন্যাশনাল ওয়েব পোর্টাল প্রজেক্ট ‘এক্সেস টু ইনফরমেশন অ্যান্ড নলেজ’ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের এই ন্যাশনাল ওয়েব পোর্টাল বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম সরকারি ওয়েব পোর্টাল। এ ওয়েব পোর্টালে ২৫ হাজার ওয়েবসাইট ও ৪২ হাজার সরকারি দপ্তরকে যুক্ত করা হয়েছে। এর আগের বছর ২০১৪ সালে ‘ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার’ প্রকল্পের জন্য এটুআই কর্মসূচি এ পুরস্কার পায়। দেশের সব ইউনিয়ন ও জেলায় তথ্য সেবাকেন্দ্রসহ বেশ কয়েকটি প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন সেবা দিয়ে আসছে এটুআই।

যেভাবে তৈরি হল ‘আমাদের ন্যানো স্যাটেলাইট’

প্রযুক্তি ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে মহাকাশযান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স-এর ফ্যালকন ৯ রকেটে করে ২ জুন মহাকাশে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের তৈরি প্রথম ন্যানো স্যাটেলাইট ‘ব্র্যাক অন্বেষা’। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে সময় পিছিয়ে বাংলাদেশ সময় ৪ জুন মধ্যরাত ৩টায় নতুন সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ন্যানো স্যাটেলাইটের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে ইতোমধ্যে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় উন্মোচন করেছে নিজস্ব গ্রাউন্ড স্টেশন। এই ন্যানো স্যাটেলাইট নিয়ে যাত্রার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে তুলে ধরেছেন গবেষক ড. আরিফুর রহমান খান। বাংলাদেশের ন্যানো স্যাটেলাইট যাত্রা মূলত তার হাত ধরেই শুরু। এই ন্যানো স্যাটেলাইট তৈরির শুরুর সময়টায় তিনি গবেষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন জাপানের কিউসু ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (কিউটেক)-তে। ড. আরিফ আর বাংলাদেশে থাকা ব্র্যাক অন্বেষা দলের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে করা হয়েছে এই প্রতিবেদন। যেভাবে শুরু এশিয়ার উদীয়মান দেশগুলোকে ক্ষুদ্র কৃত্রিম উপগ্রহ বা ন্যানো স্যাটেলাইট বানানো শেখাতে ২০০৯ সালে একটি প্রকল্পের প্রস্তাবনা দেয় ‘ইউনাইটেড নেশন’স অফিস ফর আউটার স্পেস অ্যাফেয়ার্স’, ২০১৩ সালে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন শুরু হবে বলে জানানো হয়। এই প্রকল্পের ঘাঁটি হিসেবে বেছে নেওয়া হয় জাপানের কিউসু ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (কিউটেক)-কে। এই প্রকল্পের কথা শোনার পরই নিজ দেশের মেধাবীদের নিয়ে কিছু করার আশা জাগে ড. আরিফুর-এর। যোগাযোগ শুরু করে দেন বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে। “কিন্তু এটা তখন কেউ বিশ্বাসই করতে চায়নি, এমনকি কোনো জবাবও পাইনি”- বলেছেন তিনি। ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়-এর কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. খলিলুর রহমান-কে বিষয়টি বোঝানোর পর তার কাছ থেকে কিছুটা আগ্রহ পাওয়া যায় বলেও জানান। ২০১৩ সালে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্য ড. আইনুন নিশাত-এর উৎসাহে দেশে আসেন ড. আরিফুর।

প্রাণ বাঁচানো নতুন সুপার এ্যান্টিবায়োটিক আবিস্কার

প্রযুক্তি ডেস্ক:: বিজ্ঞানীরা বলছেন তারা এমন এক এ্যান্টিবায়োটিক আবিস্কার করেছেন যা প্রচলিত এ্যান্টিবায়োটিকের চেয়ে হাজার গুণ শক্তিশালী এবং তা এ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী যে কোনো যুদ্ধে তাদের প্রবলভাবে উৎসাহীত করছে। তবে এ ধরনের সুপার এ্যান্টিবায়োটিক এখনো মানুষের শরীরে প্রয়োগ করা হয়নি। বিশ্বস্বাস্থ্য ব্যবস্থায় সংক্রমণ এখনো এক বড় হুমকি হিসেবে রয়েছে যা প্রতিরোধে এধরনের সুপার এ্যান্টিবায়োটিক আশাতীত সফলতা নিয়ে আসবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। নতুন এই সুপার এ্যান্টিবায়োটিক ব্যাক্টেরিয়াকে ৩ ভাবে প্রতিরোধ করবে। পুনরায় ব্যাক্টেরিয়া শক্তিশালী হয়ে ওঠার সম্ভাবনাও কম থাকবে। মার্কিন গবেষকরা ভ্যানকমিসিন নামে এ সুপার এ্যান্টিবায়োটিকটিকে ওষুধে রুপান্তরিত করেছেন। আগামী ৫ বছরের মধ্যে এটি মানবচিকিৎসায় ব্যবহারযোগ্য করে তোলা যাবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা। মূত্রনালী ও ক্ষত সংক্রমণ সারাতে ভ্যানকমিসিন ওষুধ ব্যবহার হলেও এর সক্ষমতা কমে যায়। ফলে চিকিৎসকরা শক্তিশালী এ্যান্টিবায়োটিকের সন্ধান করছিলেন যাতে ওই ওষুধটি আরো কার্যকর করে তোলা যায়। এ্যান্টিবায়োটিক যথাযথভাবে কার্যকর হতে না পারায় ইউরোপ ও আমেরিকায় বছরে ৫০ হাজার মানুষ মারা যায়। নতুন সুপার এ্যান্টিবায়োটিক গবেষণাগারে ওষুধ প্রতিরোধ করে এমন ব্যাক্টেরিয়াকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছে। যা চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীদের কাছে বিস্ময়কর বলেই মনে হচ্ছে। গত ৬০ বছর ধরে চিকিৎসকরা ভ্যানকমিসিন ব্যবহার করে আসছিলেন। কিন্তু ব্যাক্টেরিয়াও এত শক্তিশালী হয়ে পড়ে যে ভ্যানকমিসিনের দক্ষতা কমতে থাকে। দি স্ক্রিপস রিসার্চ ইনস্টিটিউট গবেষণা করে সুপার এ্যান্টিবায়োটিকের এ সফলতা পায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দীর্ঘদিন ধরে এ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী ব্যাক্টেরিয়া সম্পর্কে সাবধান করে বলছে স্বাস্থ্য ছাড়াও খাদ্য নিরাপত্তা ও উন্নয়নে এটি বিরাট বাধার সৃষ্টি করার পাশাপাশি ওষুদের কার্যকারিতা কমে যাওয়ায় চিকিৎসা অনেক ক্ষেত্রে কঠিন হয়ে পড়ছে। গবেষকরা এখন ব্যাক্টেরিয়া যাতে তাদের কোষ প্রাচীর থেকে আরো শক্তিশালী হয়ে উঠতে না পারে সুপারএ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ করে সে প্রক্রিয়া ভেঙ্গে ফেলার চূড়ান্ত গবেষণা পর্বে রয়েছেন এবং বেশ কিছুটা সফলতাও পেয়েছেন। এধরনের সফলতা না পাওয়া গেলে ২০৫০ সালের মধ্যে আরো অনেক বেশি মানুষ মারা যেত বলে বিজ্ঞানীরা আগেভাগেই হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। বিবিসি/ডেইলি মেইল

ডিসেম্বরেই উড়বে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট : তারানা হালিম

প্রযুক্তি ডেস্ক:: আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ডিসেম্বরের ১৬ তারিখে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মহাকাশে নিক্ষেপ করা হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। আজ সোমবার নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। সোমবার বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের কাজের অগ্রগতি বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট বাণিজ্যিক অপারেশনে যেতে পারবে ২০১৮ সালের জুনে। তার আগে কয়েকটি পর্যায় অতিক্রম করতে হবে।” আগামী জুলাই মাসে উৎক্ষপণের চূড়ান্ত সময় জানা যাবে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “আমার এখন পর্যন্ত নিশ্চিত যে ডিসেম্বরের প্রথম বা শেষ সপ্তাহে উৎক্ষেপণ করা হবে।” যুক্তরাষ্ট্রের স্পেসএক্স ও ফ্যালকন ৯ উৎক্ষেপণযান ব্যবহার করে ফ্লোরিডার লঞ্চ প্যাড থেকে এবছরের ডিসেম্বরে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণের সময় আগে থেকেইনির্ধারিত ছিল। উৎক্ষেপণের বিষয়টি আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে জানিয়ে তারানা হালিম বলেন, “‍কোন রকম সমস্যা হলে আমরা হয়ত জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে যেতে পারি।ডিসেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রে ফ্লোরিডার আবহাওয়া ঠিক থাকলে সমস্যা হবে না।” প্রধানমন্ত্রী ফ্লোরিডাতে না গিয়ে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মানুষের সাথে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের আনন্দ ভাগাভাগি করতে চান বলেও জানান তারানা। সম্প্রতি স্যাটেলাইট নির্মাণের অগ্রগতি পরিদর্শনে ফ্রান্স সফর করেন প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। ফ্রান্সের থালিস এলিনিয়া স্পেস ফ্যাসিলিটিতে এ স্যাটেলাইট নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের দিকে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী। স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের আগে কয়েকটি পরীক্ষা করা হবে জানিয়ে তারানা বলেন, “ইনিশিয়াল পারফরমেন্স টেস্ট, ফরমাল ভ্যাকুয়াম টেস্ট, ফাইনাল পারফরমেন্স টেস্ট, ফাইনাল প্রিপারেশন টেস্ট করার পরেউৎক্ষেপণের জন্যশিপমেন্ট করা হবে।” সোলার রে ও অ্যান্টেনা আলাদাভাবে তৈরি করে ফ্যাক্টরির মধ্যে রাখা হয়েছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এন্ড টু এন্ড টেস্ট শেষ করা সম্ভব হবে বলে তারা জানিয়েছে।” স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের এক সপ্তাহ আগে থেকে কাউন্টডাউন করে প্রচার চালানো হবে এবং উৎক্ষেপণসরসারি সম্প্রচার করা হবে বলেও জানান তিনি। ২০১৫ সালের ২১ অক্টোবর সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ উৎক্ষেপণে ‘স্যাটেলাইট সিস্টেম’ কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দেয়। এ স্যাটেলাইটে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার থাকবে, যার ২০টি বাংলাদেশের ব্যবহারের জন্য রাখা হবে এবং বাকিগুলো ভাড়া দিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সম্ভব হবে। এ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর বিদেশি স্যাটেলাইটের ভাড়া বাবদ বছরে ১৪ মিলিয়ন ডলার সাশ্রয় হবে বলে সরকার আশা করছে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট প্রকল্প আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন সংস্থার (আইটিইউ) ‘রিকগনিশন অফ এক্সিলেন্স’ পুরস্কারও পেয়েছে।

ফেসবুকের স্মৃতিময় সেই স্থানে জাকারবার্গ

প্রযুক্তি ডেস্ক:: গত ২০০৪ সালে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস থেকে ফেসবুকের প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু করেন মার্ক জাকারবার্গ। ওই সময় এটার প্রতি তিনি এতটাই আসক্ত হয়ে যান যে, শেষ পর্যন্ত অত্যন্ত মর্যাদাপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠান থেকে ঝরে পড়েন। এবার ১৩ বছর পর ফেসবুকের উৎপত্তিস্থলে ফেরত গেলেন সামাজিক এই যোগাযোগ মাধ্যমটির প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। এবার একটু অন্যভাবে তিনি সেখানে এলেন। বর্তমানে তিনি পৃথিবীর অন্যতম সফল একজন ব্যক্তি। তার সাইট ব্যবহার করছে পৃথিবীর কোটি কোটি মানুষ এবং একই সঙ্গে বিলিয়ন, বিলিয়ন ডলারের মালিকও তিনি। মার্ক জাকারবার্গ হারভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার জন্য বর্তমানে সেখানে অবস্থান করছেন। বৃহস্পতিবার হার্ভার্ড গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে বক্তব্য দেবেন তিনি। তার আগে মঙ্গলবার স্ত্রী প্রিসিলা চ্যানকে নিয়ে নিজের পুরনো কক্ষ ঘুরে আসেন জাকারবার্গ। সেখানে গিয়ে ২৩ মিনিটের একটি ফেসবুক লাইভে ছিলেন এ দুজন। লাইভে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ৩৩ বছর বয়সে জায়গাটিতে আবারও আসতে পারাটা খুবই আনন্দের। ১৩ বছর আগে চলে যাওয়ার পর এই প্রথম আমি এখানে এলাম। এই জায়গাটিতেই আমার জীবনের দারুণ সব বিষয় ঘটে গেছে।

মানুষকে টিকে থাকতে হলে আবাস গড়তে হবে অন্য গ্রহে?

প্রযুক্তি ডেস্ক:: মানব সভ্যতাকে টিকিয়ে রাখতে হলে আমাদের অবশ্যই আবাস গড়তে হবে পৃথিবী ভিন্ন অন্য কোন গ্রহে। হ্যাঁ, এমনটাই জানিয়েছেন সময়ের সব থেকে বড় বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং। তিনি সাবধান বাণী করেন, 'আমাদের টিকে থাকা নির্ভর করছে অন্য গ্রহ খুঁজে পাওয়া এবং সেখানে বসতি গড়ে তোলার উপর'। আর সে কাজটি এখনই শুরু করার তাগিদ দিয়েছে তিনি। নয়তো বিবর্তনের ধারায় মহাবিশ্ব থেকে হারিয়ে যাবে মানুষের চিহ্ন। আগামী মাসে নরওয়েতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া 'স্টারমাস বিজ্ঞান ও আর্ট ফেস্টিভাল' উপলক্ষে লন্ডনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এই সাবধান বাণী করেন। 'আমাদের পৃথিবী মহাশূন্য থেকে হারিয়ে যাচ্ছে এবং আমাদেরকে অন্যত্র বসবাসের জন্য আমাদের প্রযুক্তিগত সীমাবদ্ধতা গুলোকে ভাঙতে হবে', বলেন এই মহিাবিজ্ঞানী। সূত্র : ইনডিপেন্ডেন্ট

জুনে আরও বড় সাইবার আক্রমণ?

প্রযুক্তি ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের হ্যাকিং টুল ব্যবহার করে বিশ্বব্যাপী ওয়ানাক্রাই র‍্যানসমওয়্যার আক্রমণ চালানো দলটি এবার আরও ক্ষতিকর কোড ছাড়ার হুমকি দিয়েছে। এ হুমকির পর মঙ্গলবার সম্ভাব্য আরেকটির সাইবার আক্রমণের ধাক্কার দিকে নজর দিয়েছে বিভিন্ন দেশের সরকার। দ্রুত ছড়িয়ে পড়া এই সাইবার হামলায় শুক্রবার থেকে তিন লাখেরও বেশি কম্পিউটার আক্রান্ত হয়েছে। মঙ্গলবার আক্রমণ কিছুটা শিথিল হয়ে এলেও কারা এবং কেন এই হামলা চালিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। এই আক্রমণে মার্কিন নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএ’র হাতে থাকা টুল ব্যবহার করা হয়েছে, যা চলতি বছর এপ্রিলে ফাঁস হয়ে যায়। এনএসএ’র কাছ থেকে এই টুল হাতিয়ে নেওয়ার দাবি করা দল শ্যাডো ব্রোকারস মঙ্গলবার এমন আরও কোড ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে। এই কোড ছেড়ে দেওয়া হলে তা বিশ্বের সবচেয়ে বিস্তৃত পরিসরে ব্যবহৃত কম্পিউটার, সফটওয়্যার আর ফোনগুলোর নিরাপত্তা হ্যাকাররা লঙ্ঘন করতে পারে। শ্যাডো ব্রোকারস-এর পক্ষ থেকে দেওয়া এক ব্লগ পোস্টে বলা হয়, চলতি বছর জুন থেকে প্রতি মাসে এমন টুল বের করা হবে। প্রযুক্তি বিশ্বের সবচেয়ে বড় কিছু বাণিজ্যিক গোপনীয়তা অ্যাকসেস করতে অর্থ পরিশোধ করতে চায় এমন যে কারও কাছে এই টুলগুলো দেওয়া হবে। এখানেই শেষ নয়, রাশিয়া, চীন, ইরান আর উত্তর কোরিয়ার চালানো পারমাণবিক ও মিসাইল কার্যক্রম ও বিশ্বব্যাপী ব্যাংকগুলোর ব্যবহার করা আন্তর্জাতিক অর্থ লেনদেন নেটওয়ার্ক সুইফট থেকে ডেটা ফাঁসের হুমকিও দেওয়া হয়েছে। “জুনে আরও বিস্তারিত” প্রকাশ করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ওই দলটি। মঙ্গলবার ওয়ানাক্রাই আক্রমণ কিছুটা শিথিল হয়েছে, বলা হয়েছে রয়টার্স-এর প্রতিবেদনে। কানাডার ফরাসী ভাষায় পরিচালিত বিশ্ববিদ্যালয় উনিভার্সিত দ্য মন্ট্রিয়াল-এর ৮৩০০টি কম্পিউটারের মধ্যে ১২০টি আক্রান্ত হয়েছে, এমন তথ্য প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির এক মুখপাত্র। যুক্তরাষ্ট্রে আর কোনো বড় ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার মার্কিন এক কর্মকর্তা বলেন, শুক্রবার থেকে এ পর্যন্ত ১০টিরও কম মার্কিন প্রতিষ্ঠান দেশটির ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটিজ-এর কাছে অভিযোগ করেছে। চেক নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান আভাস্ট-এর তথমতে, রাশিয়া, তাইওয়ান, ইউক্রেইন আর ভারত এই হামলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। রয়টার্স-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, অধিকাংশ মার্কিন ব্যবহারকারী লাইসেন্সকৃত বা আপডেট করা সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকে। আর এই আক্রমণে মাইক্রোসফটের উইন্ডোজের পুরানো কিছু সংস্করণকে লক্ষ্য করায় বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্র অনেক বড় ক্ষতি এড়াতে সক্ষম হয়েছে। দেশটির ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটিজ চলতি বছর মার্চে মাইক্রোসফটের আনা উইন্ডোজ আপডেটের গুরুত্ব নিয়ে প্রযুক্তি খাতকে সতর্ক করতে একটি ‘আগ্রাসী সচেতনামূলক প্রচারণা’ চালু করেছে।

প্রধান সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘এখানেই ডট কম’

আবারো সাইবার হামলার আশঙ্কা

এইচআইভি রোগীদের সুখবর দিচ্ছে চিকিৎসা বিজ্ঞান

সর্ববৃহৎ এক্স-রে মেশিন : এখন অদেখাকে দেখবে মানুষ!

রাজনীতিতে আসছেন জাকারবার্গ?

চতুর্মুখী জটিলতায় ফোরজি সেবা

ইন্টারনেটের দাম কমছে : তারানা হালিম

গ্যালাক্সি এস-৮ নিয়েও গ্রাহকদের অভিযোগ

মস্তিষ্কচালিত কম্পিউটার তৈরি করছে ফেসবুক


আজকের সব সংবাদ

সম্পাদক : মো. আলম হোসেন
প্রকাশনায় : এ. লতিফ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
সরদার নিকেতন
হাসনাবাদ, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা-১৩১১।

ফোন: ০২-৭৪৫১৯৬১
মুঠোফোন: ০১৭৭১৯৬২৩৯৬, ০১৭১৭০৩৪০৯৯
ইমেইল: ekantho24@gmail.com