শনিবার, ২২ Jul ২০১৭ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৪ English Version

সারাদেশ - ঢাকা বিভাগ - নারায়নগঞ্জ

আজ শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচারণা, বৃহস্পতিবার ভোট

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: আজ মঙ্গলবার রাত ১২টা থেকে শেষ হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনের সকল প্রকার প্রচার-প্রচারণার কাজ। আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় ২৭টি ওয়ার্ডের ১৭৪টি কেন্দ্রে শুরু হবে ভোটগ্রহণ। এরই মধ্যে কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত করার কাজ শুরু হয়ে গেছে। ভোট গ্রহণের দিন পোলিং অফিসার, ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ, র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব), বিজিবি, আনসারসহ প্রায় সাড়ে নয় হাজার সদস্য ভোটসংশ্লিষ্ট কাজে নিয়োজিত থাকবেন। এদিকে, আজ সকাল ১০টায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে নগরীর পাইকপাড়া এলাকায় গণসংযোগ শুরু করে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডেও গণসংযোগ করবেন। এসময় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা থাকবেন গণসংযোগ মাঠে। এ ছাড়া সকাল ১০টায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ড দেওভোগ এলাকায় গণসংযোগ শুরু করবেন আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। বিকেল ৩টায় ১৮ নম্বর ওয়ার্ড শহীদনগর এলাকায় গণসংযোগে নামবেন তিনি। সূত্র: এনটিভি

বহিরাগতদের নারায়ণগঞ্জ ছাড়ার নির্দেশ

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচন উপলক্ষে আজ মধ্যরাত থেকে সংশ্লিষ্ট এলাকায় অবস্থানরত বহিরাগতদের এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আজ সোমবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের পরিচালক (জনসংযোগ) এস এম আসাদুজ্জামান এই তথ্য জানিয়ে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. নুরুজ্জামান তালুকদার এই বিষয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকায় একটি নির্দেশনা জারি করেছেন।’ নির্দেশনায় বলা হয়েছে, আজ (সোমবার) রাত ১২টার মধ্যে নির্বাচনকে প্রভাবমুক্ত রাখতে বহিরাগতদের এলাকা ছাড়তে হবে। এ ছাড়া জেলা প্রশাসন আজ থেকে পরবর্তী সাত দিনের জন্য (১৯ থেকে ২৫ ডিসেম্বর) বৈধ অস্ত্র প্রদর্শনও নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। আসাদুজ্জামান আরো জানান, আগামীকাল দিবাগত রাত ১২টা থেকে (ভোট শুরুর ৩২ ঘণ্টা আগে) ২৪ ডিসেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত (ভোটের পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টা) সব ধরনের জনসভা, মিছিল, শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া আজ রাত ১২টা থেকে আগামী ২২ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) রাত ১২টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল এবং ২১ ডিসেম্বর (বুধবার) রাত ১২টা থেকে ট্যাক্সি, মাইক্রোবাস, বাস, টেম্পো, কার, পিক-আপ, জিপ, ট্রাক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকবে। তবে নির্বাচন কমিশনের অনুমোদিত যানবাহন ও জরুরি কাজে যান চলাচলের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা শিথিল থাকবে।

আইভীকে জাতীয় পার্টির সমর্থন

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীকে সমর্থন দিয়েছে জাতীয় পার্টি (এরশাদ)। আজ সোমবার দুপুর ১টার দিকে শহরের ২নং রেলগেটস্থ জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এ কথা জানানো হয়। নারায়ষগঞ্জে জাতীয় পার্টির কোনও দলীয় কার্যালয় না থাকায় জাপা সংবাদ সম্মেলন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম মেম্বার এস এম ফয়সাল চিশতি জানান, ‘নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে (২০১৪ সালের ২৬ জুন অনুষ্ঠিত) আওয়ামী লীগ আমাদের সম্মান দেখিয়ে কোনও প্রার্থী দেয়নি। সে হিসেবে আমরাও সিটি করপোরেশন নির্বাচনের জাতীয় পার্টি থেকে কোনও প্রার্থী দেইনি। জাতীয় পার্টি এখানে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আইভীকে সমর্থন দিয়েছে। জাতীয় পার্টি ইতোমধ্যে এ নিয়ে কাজ করেছে। নেতাকর্মীদের স্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে আইভীর পক্ষে কাজ করতে। আইনের বাধ্যবাধকতার কারণে এমপি সেলিম ওসমান প্রকাশ্যে কিছু করতে পারছে না।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সবাইকে অনুরোধ করবো আইভীকে জয়ী করতে। তিনি একজন কর্মঠ, দক্ষ ও জনপ্রিয় নেত্রী। এ নির্বাচনে সরকারের কোনও পরিবর্তন ঘটবে না। তবে এলাকাতে শান্তি ও অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নিতে আইভীকে জয়ী করাতে হবে। তাছাড়া আমার সঙ্গে আইভীর কথা হয়েছে। তিনি আমাকে জানিয়েছেন ৪দিন আগে সেলিম ওসমানের মোবাইলে কথা বলে দোয়া চেয়েছেন।’ সংবাদ সম্মেলনে নারায়ণগঞ্জ জাতীয় পার্টির কোনও নেতাকে দেখা যায়নি। এ প্রসঙ্গে ফয়সাল চিশতি বলেন, ‘আমাদের নেতারা প্রচারের কাজে আছেন। তাই আসতে পারেনি।’ সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আবদুর সবুর আসুদ, হাজী সাইফউদ্দিন আহমেদ মিলন, ভাইস চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম নুরু, আলমগীর শিকদার লোটন, যুগ্ম মহাসচিব সফিকুল ইসলাম সফিক, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম জসিমউদ্দিন প্রমুখ। পরে নেতারা শহরের বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ করেন।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিয়ে মরিয়া শামীম ওসমান

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে নিজের সমর্থনপুষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের জয় নিশ্চিত করতে মরিয়া হয়ে পরেছে স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। এর জন্য আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সহায়তাও চেয়েছেন তিনি। পাশাপাশি কাউন্সিলরদের জেতানোর দায়িত্ব তার হাতে ছেড়ে দেওয়া হোক, এমন আগ্রহও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে প্রকাশ করেছেন শামীম। সেই প্রস্তাব নাকচ করেছে কেন্দ্র। আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো কাউন্সিলরদের নিয়ে শামীম ওসমানের মরিয়া হয়ে ওঠার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো আরও জানিয়েছে, ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিয়ে কোনও আগ্রহ কেন্দ্রের নেই। কেন্দ্রের এমন সিদ্ধান্তের কথা শামীম ওসমানকে এরই মধ্যে জানিয়েও দেওয়া হয়েছে। সূত্র জানায়, নাসিক নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে একান্ত নিজের লোক না পেলেও স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ২৭টি ওয়ার্ড ও ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডেই তার অনুসারীদের কাউন্সিলর প্রার্থী হিসাব দাঁড় করিয়েছেন। তাই তার সমর্থনপুষ্ট কাউন্সিলরদের বিজয়ী করার দায়িত্ব যেন তার হাতে ছেড়ে দেওয়া হয়, এ প্রস্তাব কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে করেছেন তিনি। তবে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার স্বার্থে তার এ প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। তবে কাউন্সিলর প্রার্থীরা যেহেতু নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছে না তাই নাসিক নির্বাচনে কাউন্সিলরদের নিয়ে একেবারেই ভাবছে না আওয়ামী লীগ। ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে ওসমানকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, নাসিক নির্বাচনে নৌকা নিয়ে লড়াই করছেন মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তাই আইভীকে জেতানোই কেন্দ্রের একমাত্র লক্ষ্য। এর বাইরে সবগুলো ওয়ার্ডে যদি বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিরলররা জিতেও যান, তাতেও আপত্তি নেই দলটির। আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী সূত্রগুলো বলছে, শামীম ওসমানকে কেন্দ্রীয় নেতারা জানিয়ে দিয়েছেন, কাউন্সিলর নির্বাচন করতে তারা নারায়ণগঞ্জ যাননি। তারা নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে নারায়ণগঞ্জে কাজ করছেন। তাই কাউন্সিলর নির্বাচন নিয়ে কারও ‘সিরিয়াস’ হয়ে ওঠার সুযোগ নেই। নৌকার প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে জয়ী করাই তাদের প্রধান লক্ষ্য। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাসিক নির্বাচনের অন্যতম সমন্বয়ক, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘শামীম ওসমান তার কিছু অনুসারীকে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী করেছেন। তিনি তার মনোনীত কাউন্সিলরদের বিজয়ী করতে আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। আমরা শামীম ওসমানকে জানিয়ে দিয়েছি, কাউন্সিলর নিয়ে কেন্দ্র কোনও চিন্তা করছে না।’ জাফরউল্যাহ আরও বলেন, ‘দেখা গেছে, প্রতিটি ওয়ার্ডে একাধিক কাউন্সিলর প্রার্থী আছেন। মাত্র ৩/৪টি ওয়ার্ডে একক প্রার্থী আছেন যারা আওয়ামী লীগ করেন। ফলে কাউন্সিলর নিয়ে কাজ করা সম্ভব নয়।’ তিনি বলেন, ‘তাছাড়া নৌকার প্রার্থী নিয়ে আওয়ামী লীগ কাজ করছে। কাউন্সিলরা নৌকা নিয়ে নির্বাচন করছে না। তাই কাউন্সিলর জিতল কি হারল, তা নিয়ে আমাদের মাথাব্যথা নেই।’ এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শামীম ওসমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এ বিষয়ে পরে কথা বলব।’ এরপর তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে কল দেওয়া হলেও তিনি আর কল রিসিভ করেননি। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলী ও সম্পাদকমণ্ডলীর তিন জন নেতা বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনে কেন্দ্রের যেসব নেতা দায়িত্ব পালন করছেন তাদের দুই দিন আগে শামীম ওসমান কাউন্সিলরদের জেতানোর বিষয়ে তার আগ্রহের কথা বলেছেন। এক পর্যায়ে এ দায়িত্ব তার উপর ছেড়ে দেওয়া হোক, এ প্রস্তাবও করেন তিনি। শামীমের এই প্রস্তাব দায়িত্বশীল নেতারা দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনাকে অবহিত করলে বিরক্তি প্রকাশ করে তা নাকচ করে দেন প্রধানমন্ত্রী। নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করছেন এমন এক নেতা জানিয়েছেন, কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিজয়ী করতে শামীম ওসমানের প্রস্তাবকে সন্দেহের চোখেও দেখেন প্রধানমন্ত্রী। কাউন্সিলর জেতানোর পরিকল্পনা থাকা মানেই নির্বাচনে গোলোযোগ সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা। শীর্ষ পর্যায় থেকে শামীম ওসমানকে তাই মেসেজ দেওয়া হয়েছে, নির্বাচন নৌকার। আর নৌকার প্রার্থী আইভী। এটাই যেন শেষ পর্যন্ত মনে রাখা হয়। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আইভী। আইভী নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কাউন্সিলররা নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন না। ফলে নৌকার জয়ের জন্য কাজ করতে হবে, কাউন্সিলরদের জয়ের জন্য কাজ করার প্রয়োজন নেই। সূত্র আরও জানায়, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেছেন, কাউকে জেতানোর দায়িত্ব কারও নিতে হবে না। জনগণ যাকে বেছে নেবে সে বিজয়ী হবে।

নাসিক নির্বাচনে ২২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু করতে কঠোর নিরাপত্তার জন্য পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ব্যাটালিয়নের পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবির ২২ প্লাটুন ফোর্স মোতায়েন করা হচ্ছে। আজ সোমবার দুপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালন করবেন নির্বাচন কমিশন উপ-সচিব ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মো. নুরুজ্জামান তালুকদার। রিটানিং অফিসার বলেন, সোমবার মধ্য রাত হতে ২৩ ডিসেম্বর সকাল পর্যন্ত মটরসাইকেল চলাচল বন্ধ থাকবে, বহিরাগতদের প্রবেশ ও বৈধ অস্ত্র বহন করা নিষিদ্ধ ও ২১ ডিসেম্বর মধ্যরাত হতে ২২ ডিসেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত সকল ধরনের যানচলাচল বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এছাড়াও সোমবার হতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রসহ সকল নিরাপত্তার দায়িত্ব বণ্টন করা হবে বলে তিনি জানান। আগামী ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৭৪টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর প্রত্যেকটি ভোট কেন্দ্রকেই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন রিটার্নিং অফিসার। আর ২৭টি ওয়ার্ডে ২৭জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করছেন।

আইভী নিউজিল্যান্ডের বাসিন্দা: সাখাওয়াত

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী নিউজিল্যান্ডের বাসিন্দা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। আজ সোমবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রচারণার সময় সাখাওয়াত এ মন্তব্য করেন। এর আগে আইভী অভিযোগ তুলেছিলেন সাখাওয়াত নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা না। তিনি বিএনপির ভাড়াটে। ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় সাখাওয়াত বলেন, ‘আমাদের পরিবার এ শহরে ১৫০ বছর ধরে ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত। আমার শিক্ষাজীবন এখানে কেটেছে। আমি আমার ২৫ বছরের পেশাজীবনে নারায়ণগঞ্জের মানুষের সঙ্গেই ছিলাম, এখনও আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো। সেলিনা হায়াৎ আইভীতো নিউজিল্যান্ডের বাসিন্দা। ওনার স্বামী নিউজিল্যান্ডের নাগরিক। উনিও নিউজিল্যান্ডের নাগরিক ছিলেন। ২০০৩ সালে নির্বাচন করার জন্য নাগরিকত্ব ছেড়ে এখানে এসেছেন।’ আইভীর পক্ষে এমপি শামীম ওসমানের সংবাদ সম্মেলনকে ইঙ্গিত করে সাখাওয়াত বলেন, ‘আইভী কার সঙ্গে হাত মিলিয়েছে সেই বিচারটা জনগণের ওপর দিলাম। আইভীর সন্ত্রাস বিরোধী অবস্থান শুধু একটা পরিবারে বিরুদ্ধে ছিল। কোনও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তিনি কথা বলেন নাই। শুধুমাত্র একটি পরিবারে বিরুদ্ধে কথা বলে উনি আজ দাবি করছেন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কথা বলছেন। আর আমি ওই পরিবারের বিরুদ্ধেও কথা বলেছি, সকল অন্যায় অত্যাচার ও অপরাধের বিরুদ্ধেও কথা বলেছি। উনার কার্যক্রমের বিরুদ্ধেও আমি কথা বলেছি।’ সাখাওয়াত বলেন, ‘উনি ১৩ বছর সময় পেয়েও অনেক সমস্যার সমাধান ও উন্নয়ন করতে পারেননি। আমাকে মানুষ পাঁচ বছর সময় দিলে আমি সন্ত্রাস নির্মূল করবো। আইভী বুঝে গেছে জনগণ উনাকে আর ভোট দেবে না।’ এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএনপি নেতা তাবিথ আওয়াল, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ কোষাধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু প্রমুখ।

না.গঞ্জ সিটি নির্বাচনে সেনার প্রয়োজন নেই -আইভী

অনলাইন ডেস্ক :> বিএনপির দাবি থাকলেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের এই মুহূর্তে সেনাবাহিনীর কোনো প্রয়োজন নেই বলে মনে করছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। বৃহস্পতিবার সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বলেন, ‘গতবার প্রথম দিকে আমি প্রথম সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছিলাম। পরে আপনাদের সামনেই আমি বলেছি, নারায়ণগঞ্জের লক্ষ মানুষই আমার সেনাবাহিনী।’ ‘গতবার সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে সেনাবাহিনী ছাড়াই। এবারো আমি মনে করি, মানুষ যদি একাত্ম থাকে তাহলে মানুষই সেনাবাহিনীর ভূমিকা পালন করে। মানুষের অধিকারের জায়গা থেকেই বলতে চাই, নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য এই মুহূর্তে কোনো সেনাবাহিনীর প্রয়োজন নেই। আমার লক্ষ জনতা আমার সেনাবাহিনী’, যোগ করেন আইভী। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষে দিনে আজ নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দলীয় নেতাদের নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন নগরীর প্রথম এ মেয়র। মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন আইভী। তবে এ নির্বাচনে আইভীর প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নারায়ণগঞ্জে ভোটের আগে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন। আজ মনোনয়নপত্র জমাদানের সময় নগর আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকে দেখা না গেলেও আইভী সাংবাদিকদের জানান, তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আছেন। নির্বাচনী আচরণবিধির বাধ্যবাধকতার কারণে সবাই এখানে আসেননি। তবে তৃণমূল ঐক্যবদ্ধ আছে। এবারই প্রথম রাজনৈতিক দলের প্রতীক নিয়ে মেয়র প্রার্থী হলেও জাতীয় রাজনৈতিক প্রভাব এই স্থানীয় সরকারের ভোটে পড়বে না বলেই মনে করেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। জেলা আওয়ামী লীগের এ নেতা আরো বলেন, এখানে মেয়র পদে যারা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছে তারা শক্তিশালী প্রার্থী। নির্বাচন মানেই চ্যালেঞ্জ। সেটা মাথায় রেখেই অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে লড়তে চান তিনি। গতবারের মতো এবারো জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন সাবেক মেয়র আইভী। নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল আজ ২৪ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই ও বাছাই করা হবে আগামী ২৬ ও ২৭ নভেম্বর। নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় আগামী ৪ ডিসেম্বর। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় নির্বাচন। ২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ ও কদমরসুল এ তিনটি পৌরসভা বিলুপ্ত করে ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। একই বছর ৩০ অক্টোবর প্রথমবারের মতো সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমানকে পরাজিত করে সিটির প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াৎ আইভি। তিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী যিনি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে আইভি বিলুপ্ত হওয়া নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। এখানে একজন মেয়রের সঙ্গে ২৭টি সাধারণ ও ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ভোট হবে। মোট ভোটার চার লাখ ৭৯ হাজার ৩৯২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার দুই লাখ ৪১ হাজার ৫১৪ জন এবং নারী ভোটার দুই লাখ ৩৭ হাজার ৮৭৮ জন। এবার ভোটার বেড়েছে প্রায় পৌনে এক লাখ। সম্ভাব্য ভোটকেন্দ্র ১৬৩টি এবং ভোটকক্ষ এক হাজার ২১৭টি।

নির্বাচনে অংশ নিতে মেয়রের পদ ছাড়লেন আইভী

অনলাইন ডেস্ক :> নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী মেয়রের পদ ছেড়ে দিয়েছেন। পদত্যাগের অনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে আইভীর আশা ভোটযুদ্ধে আওয়ামী লীগের সব স্তরের নেতাকর্মীরা তার পাশে থাকবেন। এছাড়া বিএনপির প্রার্থী সাখওয়াত হোসেন খাঁন সংগ্রহ করেছেন মনোনয়নপত্র। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন বৃহস্পতিবার। এরই মধ্যে মেয়র পদে লড়তে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন আওয়ামী লীগের সেলিনা হায়াৎ আইভী ও বিএনপির সাখওয়াত হোসেনসহ নয় জন প্রার্থী। ভোটযুদ্ধে নামতে বুধবার মেয়রের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন সেলিনা হায়াৎ আইভি। বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে পদত্যাগের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে শামীন ওসমানের অনুসারী নেতারা উপস্থিত ছিলেন না। তবে শামীমপন্থী নেতারা জানান একদিন আগে গণভবনে অনুষ্ঠিত সমঝোতা বৈঠকের পর আইভীকে সর্বাত্মক সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সবাই। এছাড়া নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখওয়াত হোসেন খাঁন। বুধবার মনোনয়নপত্র নেয়ার পর আইভীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগও করেন তিনি। তবে এখন পর্যন্ত কারো বিরুদ্ধে আচরণবিধি ভাঙার আনুষ্ঠানিক অভিযোগ না পাওয়ার কথা জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এই সিটিতে ভোট হবে ২২শে ডিসেম্বর।

নারায়ণগঞ্জ সেভেন মার্ডার মামলার সব আসামিকে ফাঁসির আবেদন

ই-কণ্ঠ ডেস্ক রিপোর্ট:: নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত সেভেন মার্ডার মামলায় সব আসামিকে রশিতে ঝুলিয়ে ফাঁসির আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। আজ সোমবার নারায়ণগঞ্জ জেলার দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রাষ্ট্রপক্ষ এ আবেদন জানিয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে ১৫ জন আসামির আইনজীবীরাও তাঁদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন। বাকি ২০ আসামির পক্ষে যুক্তিতর্কের জন্য আগামীকাল মঙ্গলবার দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ সোমবার আদালতের কার্যক্রম সকাল সাড়ে নয়টা থেকে দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিট পর্যন্ত চলে। আদালতের যুক্তিতর্ক স্থাপন শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রপক্ষে সরকারি কৌঁসুলি ওয়াজেদ আলী খোকন বলেন, সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা ৭ মিনিট পর্যন্ত তিনি যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। ঘটনার পরিকল্পনা, বাস্তবায়নসহ এ ঘটনার প্রতিটি ধাপে আসামিদের সম্পৃক্ততা তিনি প্রমাণ করতে পেরেছেন। তাই বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী, রশিতে ঝুলিয়ে তাঁদের ফাঁসি দাবি করেছেন। ওয়াজেদ আলী বলেন, চার্জ গঠন থেকে শুরু করে আজ ছিল মামলার ৩৪তম কার্যদিবস। এ মামলার ২১ আসামি এবং ২০ সাক্ষী ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। রাষ্ট্রপক্ষ মামলার পক্ষে ১৬৪ জন সাক্ষী উপস্থাপন করেছে, যার মধ্যে ৬০ জন প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষী।

প্রধান সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন ২২ ডিসেম্বর

ফতুল্লায় অপরাধীরা এখন ওসি কামাল আতংকে!

গোসলে নেমে বিদ্যুৎস্পর্শে মা-মেয়েসহ নিহত ৩

দূর্গা প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত রূপগঞ্জের মৃৎ শিল্পীরা

গাউছিয়া কুড়িল রোডে নেশাখোরদের চাঁদাবাজি: টেক্সী চলাচল বন্ধ, যাত্রীদের ভোগান্তি

‘সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশ ভালো করছে’ -মার্কিন রাষ্ট্রদূত

নারায়ণগঞ্জে মহাসড়কে চলছে নিষিদ্ধ ভটভটি

নাঃগঞ্জে ৭ খুন মামলার পরবর্তী শুনানী ১৬ আগষ্ট

না'গঞ্জে মাদকবিরোধী অভিযানে পুলিশসহ নিহত ২


আজকের সব সংবাদ

সম্পাদক : মো. আলম হোসেন
প্রকাশনায় : এ. লতিফ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
সরদার নিকেতন
হাসনাবাদ, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা-১৩১১।

ফোন: ০২-৭৪৫১৯৬১
মুঠোফোন: ০১৭৭১৯৬২৩৯৬, ০১৭১৭০৩৪০৯৯
ইমেইল: ekantho24@gmail.com