রবিবার, ২৩ Jul ২০১৭ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৪ English Version

সারাদেশ - ঢাকা বিভাগ - কিশোরগঞ্জ

পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন ও মাথা ন্যাড়াকরে দেওয়ার অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক :> কিশোরগঞ্জের ভৈরবে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন ও মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ভৈরবপুর উত্তর ঈদগাহসংলগ্ন এলাকায় আজ শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটেছে। নির্যাতিত গৃহবধূ স্মৃতি বেগম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনার পর থেকে স্বামী মোমেন মিয়া পলাতক রয়েছেন। পুলিশ ও নির্যাতিতার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, প্রায় পাঁচ বছর আগে আপন চাচাতো ভাইবোন মোমেন ও স্মৃতির বিয়ে হয়। বিবাহিত জীবনে তাদের সংসারে মৌসী নামের সাড়ে তিন বছরের একটি মেয়ে সন্তান আছে। বিয়ের সময় মোমেন একটি ইলেকট্রনিকসের শোরুমে বিক্রেতা হিসেবে চাকরি করতেন। মেয়ের সংসারে সচ্ছলতা ফেরাতে পোস্টম্যান বাবা আলমগীর হোসেন সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা খরচ করে বিয়ের কিছুদিন পর কাতারে পাঠান মোমেনকে। সেখানে থাকা অবস্থায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে দেশের এক মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন মোমেন। কিছুদিন আগে দেশে ফিরে এসে ওই মেয়ের সঙ্গে যোগাযোগ ও সম্পর্ক স্থাপনকে নিয়ে তাঁদের মধ্যে মনোমালিন্য এবং একপর্যায়ে তা ঝগড়ায় পরিণত হয়। মোমেন প্রায়ই স্মৃতিকে শারীরিক নির্যাতন করতেন। এরই ধারাবাহিকতায় আজ দুপুরে নিজকক্ষে আটকে রেখে শারীরিক নির্যাতনের পর স্মৃতির মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেন মোমেন। পরে স্মৃতির চিৎকারে পরিবারের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ভৈরব বাজার ডাকঘরের কর্মচারী আলমগীর হোসেন মেয়ের ওপর অত্যাচারের সুষ্ঠু বিচার প্রার্থনা করেছেন। এ বিষয়ে ভৈরব থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বদরুল আলম তালুকদার জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একজন কর্মকর্তার নেতৃত্বে পুলিশ পাঠিয়ে নির্যাতিতার খোঁজখবরসহ তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। এ বিষয়ে নির্যাতিতা বা তাঁর পরিবারের কেউ অভিযোগ দাখিল করা মাত্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মাদকাসক্ত ছেলের নিষ্ঠুর নির্যাতনের মুক্তিযোদ্ধা বাবার মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক :> লোহার রড নিয়ে একের পর এক আঘাত। রক্তাক্ত শরীর নিয়ে দিগ্বিদিক ছুটছেন বাবা। তবুও সন্তানের নিষ্ঠুর নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই মেলেনি। দেশের জন্য যুদ্ধ করে বিজয়ী এমদাদুল হক মানিক হেরে গেলেন মাদকাসক্ত ছেলের কাছে। কিশোরগঞ্জের কটিয়াদিতে এমন নির্মম ঘটনায় স্তম্ভিত এলাকার মানুষ। পুলিশ আর স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সেখানে থাকলেও, উদ্ধার করা যায়নি মুক্তিযোদ্ধা বাবাকে। যদিও প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ নাকচ করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। মাদকাসক্ত ছেলে ঘরের বারান্দায় তালা দিয়ে, বিবস্ত্র হয়ে রড দিয়ে নির্মমভাবে পেটাচ্ছে বাবাকে। আর বাইরে তখন পুলিশ ও স্থানীয়রা। অনেক অনুরোধেও থামানো যায়নি ঘাতক আনোয়ারুল আলম জনকে। স্থানীয়রা জানায়, গেলো মঙ্গলবার রাতে নেশা করে পাশের হিন্দু পাড়ায় হামলা চালায় জন। কিন্তু ধাওয়া খেয়ে ঘরে এসে ভেতর থেকে তালা দিয়ে দেয়। এ সময় বাবা, মুক্তিযোদ্ধা এমদাদুল হক ঘুমিয়ে ছিলেন। পরে, তার ওপর শুরু হয় অমানুষিক নির্যাতন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ। বাড়ির পেছনের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকতে গেলে তাদের ওপরেও চড়াও হয় জন। এ সময় আহত হন পুলিশের এক এসআইসহ তিন সদস্য। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, ফায়ার সার্ভিসের সহায়তা চাইলেও, তারা আসেনি। এমনকি বুধবার সকলে, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ঘটনাস্থলে এসেও ছিলেন নিরব দর্শকের ভূমিকায়। যদিও অভিযোগ মানতে নারাজ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। তবে, এ দৃশ্য দেখার পরও কেন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি, সে বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি তিনি। ঘটনার পর ঘাতক জনকে আটক করেছে পুলিশ। এছাড়া, একটি হত্যা মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

ভৈরবে পারিবারিক কলহে গৃহবধূর আত্মহত্যা

ভৈরব প্রতিনিধি ॥ পারিবারিক কলহের জেরে বিলকিস (২৪) নামের এক গৃহবধূ গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়নের গোছামারা গ্রামে বুধবার রাতে এই ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে ভৈরব থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে আজ বৃহ্স্পতিবার কিশোরগঞ্জে মর্গে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গোছামারা গ্রামের মুক্তার হোসেনের মেয়ে বিলকিসের সাথে একই এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে আওয়াল মিয়ার সাথে ৮ বছর আগে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। এরই মধ্যে তাদের সংসারে আলোকিত করে আসে জান্নাত (৩) ও জিয়াদ (২) নামের দু’ সন্তান। সম্প্রতিকালের বিলকিস ও তার বাসুর পরিবারের মাঝে নানা কারণে কলহ চলছিল। বুধবার রাতে আবার কলহ শুরু হয়। পরে এই কলহের জের ধরে বিলকিস নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। বিষয়টি জানতে পেয়ে বাড়ীর লোকজন দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন। নিহত বিলকিসের বাবা মুক্তার হোসেন মুঠোফোনে সাংবাদিকদের বলেন, আমার মেয়েকে নির্যাতনের কারণেই তার এমন মৃত্যু হয়েছে। আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই। এ বিষয়ে ভৈরব থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুল আলম তালুকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভৈরবে প্রাণ জুস খেয়ে অসুস্থ ৩ জন

ভৈরব প্রতিনিধি :< কিশোরগঞ্জর ভৈরবে প্রাণ জুস খেয়ে মা-মেয়েসহ ৩জন গুরুতর অসুস্থ্য হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদেরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অসুস্থ্যরা হলেন, সেলিনা বেগম (৫০), মেয়ে সবিনা (১৫) ও সবিনার বান্ধবী সালমা (১৩)। মঙ্গলবার সকালে শহরের কালিপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল ও রোগীর পরিবার সুত্রে জানাগেছে, মঙ্গবার সকালে কালীপুর এলাকার মৃত জহির মিয়ার স্ত্রী সেলিনা তার মেয়ের বান্ধবী সালমার জন্য পাশ্ববর্ত্তী দোকান থেকে প্রাণ ফ্রুটো জুস কিনে আনেন। তারা ৩ জনেই জুস পান করার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের শরীরে নানা অসঙ্গতী দেখা দেয়। বারবার বমি করে, শারীরকভাবে দূর্বল ও নিস্তেজ হয়ে পড়ায় পরিবারের লোকেরা বেলা ১১টায় তাদেরকে দ্রুত গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এই প্রতিবেদন লেখার সময় ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদের চিকিৎসা চলছে। এই বিষয়ে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. বুলবুল আহম্মেদ জানান, রোগী পরিবারে বক্তব্য থেকে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে জুস খাওয়ার কারণে এমনটি হয়েছে। তবে বিভিন্ন পরিক্ষার পরই আসল কারণ জানা যাবে। রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রাণীর অভিযোগ বখাটে গ্রেফতার

ভৈরব প্রতিনিধি :> কিশোরগঞ্জের ভৈরবে সপ্তম শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীকে স্কুলে যাবার পথে ঝাপটে ধরে যৌন হয়রাণীর অভিযোগে মোস্তফা (১৭)নামে এক বখাটে যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার সকাল ৯টার দিকে শহরের পঞ্চবটি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। প্রত্যক্ষদর্শী ও শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা জানায়, প্রতিদিনের মত সোমবার সকালে স্থানীয় কেবি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী নিজ বাড়ি থেকে প্রাইভেট পড়ার উদ্দেশ্যে রওনা করে। পথে স্থানীয় হাজী জনাব আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌছলে একই এলাকার ইদ্রিছ মিয়ার বখাটে ছেলে মোস্তফা শিক্ষার্থীকে আপত্তিকর কথা বলায় মেয়েটি প্রতিবাদ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে তাকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ দেখা দেয়। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভৈরব থানা পুলিশকে অবহিত করলে তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে বখাটে যুবককে এলাকাবাসীর সহায়তায় গ্রেফতার করে পুলিশ। এছাড়া এই বখাটের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে একাধিক ইভটিজিং সহ নানা অপরাধ মূলক কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে বলে জানায় এলাকাবাসী। এ ঘটনায় ভৈরব কেবি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোঃ নুরুল ইসলাম বলেন, আইনের মাধ্যমে অভিযুক্ত বখাটের দৃষ্ঠান্ত মূলক শাস্তি দেয়া হউক। এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি মোঃ বদরুল আলম তালুকদার জানান, শিক্ষার্থীর বাবা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত বখাটে মোস্তফাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ভৈরবে কমিউনিটি পুলিশের সম্মেলন ও র‌্যালী

ভৈরব প্রতিনিধি ॥ ‘পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের ভৈরব থানা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের আয়োজনে আজ রবিবার সকালে সম্মেলন ও র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। র‌্যালীটি ভৈরব থানা চত্বর থেকে বের হয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ভাস্কর্য দূর্জয় মোড় প্রদক্ষিণ শেষে আবার থানা ফঠকের সামনে এসে শেষ হয়। পরে ভৈরব থানা কমিউনিটি পুলিশিং সভাপতি আলহাজ্ব মো. হুমায়ূন কবিরের সভাপতিত্বে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কিশোরগঞ্জ পুলিশ সুপার ও জেলা কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির উপদেষ্ঠা মো. আনোয়ার হোসেন খান। ভৈরব প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুল্লাহ আল মনসুরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, এস. এম. মোস্তাইন হোসেন, ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন আক্তার, বাজিতপুর সার্কেল সহকারি পুলিশ সুপার মৃত্যুঞ্জয় দে সজল, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল মনসুর ও ভৈরব থানার ওসি মো. বদরুল আলম তালুকদার। এছাড়া অন্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো. সিরাজ উদ্দিন, যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজ উদ্দিন, সাপ্তাহিক অবলম্বন সম্পাদক তাজুল ইসলাম তাজ ভৈরবী ও দৈনিক গৃহকোণ সম্পাদক এম এ লতিফ প্রমুখ। উপজেলার সাত ইউনিয়ন ও পৌর সভার মোট ৭৫টি কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি ও উপদেষ্ঠা কমিটি এবং সমাজের সুশীল, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সাংবাদিক, শিক্ষক নেতৃৃবন্দ সহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার লোকজন সম্মেলনে অংশ গ্রহণ করেন। সম্মেলনের শুরুতেই সমাজে মাদকের প্রভাব, আবাসিক হোটেলে দেহ ব্যবসা, চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, নারী নির্যাতন সহ বিভিন্ন অপরাদ মূলক কর্মকান্ড তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ডেপুটি কমান্ডার ফরহাদ, সাংবাদিক গোলাম মোস্তুফা, সাংবাদিক আসাদুজ্জামান ফারুক, আবদুর রউফ, আ’লীগ নেতা খুললুর রহমান, গজারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কাইয়ার ভূইয়া, মুক্তিযোদ্ধা হামিদুল হক, রুজি আফরোজ, শ্রীনগরের হুমায়ূন কবির প্রমুখ।

ভৈরবে গাঁজা ভর্তি ট্রাকসহ চালক আটক

ভৈরব প্রতিনিধি ॥ বিপুল পরিমানে গাজাঁ ভর্তি ট্রাক সহ চালক সুমন (২৭) নামে এক যুবককে আটক করেছে ভৈরব র‌্যাব-১৪। উদ্ধারকৃত গাঁজার আনুমানিক মূল্য সাড়ে ৩ লাখ টাকা। আজ শুক্রবার ভোর রাতে এই বিপুল পরিমানে গাঁজা ভর্তি ট্রাকসহ চালককে আটক করা হয়েছে। র‌্যাব ক্যম্প সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভৈরব র‌্যাবের আভিযানিক দল মেজর মো. সোহেল হাসান ও স্কোয়াড অফিসার মঈনুল ইসলামের নেতৃত্বে বি-বাড়িয়ার বিশ্ব রোড এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এ সময় একটি ট্রাক (যার নম্বর ঢাকা মেট্রোঃ ড-১১-০৯২৩) সন্দেহ হলে আটক করা হয়। মূহুর্তে দু’জন কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী ট্রাক থেকে লাফিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। তারা হলেন- চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী গাজীপুরের কালিগঞ্জের আল আমিন ও বি-বাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী কালু মিয়া। যা ট্রাক চালক সুমনকে আটকের পর জানায় সে। পরে গাড়ীটি তল্লাশী করে ৬টি বস্তায় মোট ৬৯ কেজি গাঁজা সহ ট্রাকটিকে আটক করা হয়।

ভৈরবে শিক্ষার্থী যৌন হয়রানীর অভিযোগে বখাটের কারাদন্ড

ভৈরব প্রতিনিধি ॥ কিশোরগঞ্জের ভৈরবে জনৈক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে আশিক আহম্মেদ (১৮) নামে এক বখাটেকে ১ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। গত রোববার রাত ৮টার দিকে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট জেসমিন আক্তার এ দন্ড দেন। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, শহরের জগন্নাথপুর এলাকায় গত রোববার সন্ধ্যায় একটি কোচিং সেন্টারের শিক্ষার্থীকে একই এলাকার জামাল আহম্মেদ’র বখাটে ছেলে আশিক আহম্মেদ যৌন হয়রানী করার সময় স্থানীয় লোকজন তাকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট জেসমিন আক্তার থানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে অভিযুক্ত বখাটেকে ১ বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন।

ভৈরবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের লোক দেখানো অভিযান

ভৈরব প্রতিনিধি॥ কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের বিরুদ্ধে লোক দেখানো মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনার অভিযোগ উঠেছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর গত ৩ মাসে ৪৩টি অভিযান চালিয়ে মাত্র ৩ কেজি গাঁজা, ২শ ১৮ পিস ইয়াবা ট্যবলেট ও বিয়ারসহ ২২ বোতল ফেন্সিডিল এবং ৭০ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। গত মে, এপ্রিল ও জুন এ তিন মাসে উক্ত মাদকদ্রব্য উদ্ধারের এমন তথ্য ভৈরব উপজেলার মাসিক আইন-শৃংখলা সভায় জমা দিয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ সার্কেল অফিস। স্থানীয় ও একাধিক সূত্র মতে, বন্দরনগরী ভৈরব। সড়ক, রেল ও নৌ পথের যোগাযোগ ব্যবস্থার সম্মৃদ্ধ শহর। ফলে চোরাকারবারি ও মাদক ব্যবসায়ীরা ভৈরবকে মাদকের ট্রানজিট রুট হিসেবে ব্যবহার করছে। এতে করে ভৈরবে গড়ে উঠেছে মাদকের স্বর্গ রাজ্য। নিত্যদিন শহরের পুলতাকান্দা, চন্ডিবের, গাছতলা ঘাট, আমলাপাড়া ও রেলওয়ে পুকুরপাড় এলাকায় বেচাকেনা হচ্ছে লাখ লাখ টাকার ইয়াবা ট্যবলেট, ফেন্সিডিল, গাঁজা সহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য। এ শহরে রয়েছে চিহৃত অর্ধশত মাদক ব্যবসায়ী। দিন দিন তাদের দৌরাত্তা বেড়েই চলছে। ফলে ধ্বংসের পথে যুব সমাজ। শহরে বাড়ছে চুরি, ছিনতাই, ইভটিজিং ও রাহাজানীর ঘটনা। এদিকে, ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ২শ গজের ভিতরেই আমলাপাড়া ও রেলওয়ে পুকুরপাড় রয়েছে চিহৃত ৩০জনের মত মাদক সম্রাট ও সম্রাজ্ঞী। তারা দেদারছে মাদক ব্যবসা চালিয়ে গেলেও অনেকেই রয়েছে ধরা ছোয়ার বাইরে। বিভিন্ন সময় ভৈরব থানা পুলিশ শহরে অভিযান চালিয়ে চিহ্নিত বেশ কয়েকজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে বিপুল পরিমানে মাদকদ্রব্যসহ আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করলেও, জেল থেকে ফিরে আবার তারা নেমে পড়েছেন পুরনো এ পেশায়। কিন্তু ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর গত ৩ মাসে ৪৩টি মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে নাম মাত্র মাদকদ্রব্য উদ্ধার করতে পারলেও, আটক করতে পারেনি কোন মাদক ব্যবসায়ীকে। এতে করে সচেতন মহলের অনেকের ধারণা মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সখ্যতা রয়েছে। এ কারণেই গত ৩মাসে বিপুল পরিমানে মাদকদ্রব্যসহ কোন ব্যবসায়ীকে আটক করতে পারেনি তারা। মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে সখ্যতা রয়েছে এমন অভিযোগ অস্বীকার করে ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ইনর্চাজ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, প্রথমত আমাদের জনবল সংকট। মাত্র ৩জন সাদা পোষাকদারী পুলিশ সদস্য রয়েছে এ অফিসে। দ্বিতীয়ত কোন অস্ত্র নেই আমাদের। ফলে আমরা একাধিক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়েও বিপুল পরিমানে মাদকদ্রব্য সহ আটক করতে পারেনি ব্যবসায়ীদের।

প্রধান সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

ভৈরবে প্রিমিয়ার ব্যাংকের ৯৩ তম শাখার উদ্বোধন

ভৈরবে গায়ে কেরোসিন ঢেলে গৃহবধুর আত্মহত্যা

ভৈরবে কালভার্ট ভরাট করে চলছে প্রভাবশালীদের বাড়ি নির্মাণের মহোৎসব

ভৈরবে রেলের কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

ভৈরবে ট্রাকসহ গাঁজা আত্মসাতের চেষ্টায় দুই পুলিশ বরখাস্ত

সবার মুখে কালো কাপড় ‘সড়ক তুমি কার’ !

ভৈরবে দুই দিন ব্যাপি সাংবাদিকতায় ডিজিটাল রিপোর্টিং কর্মশালা সমাপ্ত

ভৈরবে হাজী পাদুকা মার্কেটে অগ্নিকান্ড ॥ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

ভৈরবে বিপুল পরিমাণ মাদক ও গাড়ীসহ একজন আটক


আজকের সব সংবাদ

সম্পাদক : মো. আলম হোসেন
প্রকাশনায় : এ. লতিফ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
সরদার নিকেতন
হাসনাবাদ, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা-১৩১১।

ফোন: ০২-৭৪৫১৯৬১
মুঠোফোন: ০১৭৭১৯৬২৩৯৬, ০১৭১৭০৩৪০৯৯
ইমেইল: ekantho24@gmail.com